ঢাকা, শুক্রবার 20 October 2017, ৫ কার্তিক ১৪২8, ২৯ মহররম ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

এমপি রানার জামিন স্থগিত  থাকছে ॥ রুল নিষ্পত্তির নির্দেশ

 

স্টাফ রিপোর্টার : মুক্তিযোদ্ধা ফারুক আহমেদ হত্যা মামলায় আওয়ামী লীগ দলীয় টাঙ্গাইল-৩ আসনের সংসদ সদস্য (এমপি) আমানুর রহমান খান রানার জামিন মঞ্জুর না করে জামিন প্রশ্নে হাইকোর্টের জারি করা রুল নিষ্পত্তি করতে নির্দেশ দিয়েছেন আপিল বিভাগ। ফলে এমপি আমানুর রহমান খান রানাকে হাইকোর্টের দেয়া জামিন স্থগিতই থাকছে। 

গতকাল বৃহস্পতিবার ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি মো.আবদুল ওয়াহহাব মিঞার নেতৃত্বে আপিল বিভাগের পাঁচ বিচারপতির বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে এমপি আমানুর রহমান খান রানার পক্ষে শুনানি করেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী ব্যারিস্টার রোকনউদ্দিন মাহমুদ। সঙ্গে ছিলেন আইনজীবী মোস্তাফিজুর রহমান খান। সরকার পক্ষে ছিলেন এটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম, সঙ্গে ছিলেন ডেপুর্টি এটর্নি জেনারেল মাসুদ হাসান চৌধুরী পরাগ।

এর আগে গত রোববার আপিল বিভাগ জামিন স্থগিতের আদেশ বহাল রেখে শুনানির জন্য ১৯ অক্টোবর দিন ধার্য করেছিলেন। 

গত ২৩ আগস্ট প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার (এস কে) সিনহার নেতৃত্বে আপিল বিভাগের কিন বিচারপতির  জামিন শুনানির জন্য ১৫ অক্টোবর পর্যন্ত মুলতবি (স্ট্যান্ড ওভার) করেছিলেন।

গত ১৩ এপ্রিল আমানুর রহমান খানকে এ মামলায় জামিন দিয়েছিলেন হাইকোর্ট। এছাড়া তাকে কেন জামিন দেয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে রুলও জারি করা হয়। হাইকোর্টের এ আদেশের বিরুদ্ধে পরবর্তীতে আপিল করে সরকার।

সংসদ সদস্য আমানুর রহমান খান রানা ও তার তিন ভাইকে চলতি বছরের ১৬ জানুয়ারি আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কার করা হয়। টাঙ্গাইল জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য মুক্তিযোদ্ধা ফারুক আহমেদ হত্যা মামলায় ২০১৬ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর টাঙ্গাইলের প্রথম অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতে আত্মসমার্পণ করে জামিন আবেদন করেন এমপি রানা। বিচারক আবুল মনসুর মিয়া তার জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। এরপর থেকে তিনি কারাগারে রয়েছেন।

২০১৩ সালের ১৮ জানুয়ারি রাতে মুক্তিযোদ্ধা ফারুক আহমেদের গুলীবিদ্ধ লাশ উদ্ধার হয়। ঘটনার তিন দিন পর নিহতের স্ত্রী নাহার আহমেদ বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিদের আসামি করে টাঙ্গাইল সদর মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন। এ মামলায় টাঙ্গাইল-৩ (ঘাটাইল) আসনের সংসদ সদস্য আমানুর রহমান খান রানাসহ ১৪ জনকে আসামি করে গত ৩ ফেব্রুয়ারি টাঙ্গাইলের গোয়েন্দা পুলিশ আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়। 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ