ঢাকা, শুক্রবার 20 October 2017, ৫ কার্তিক ১৪২8, ২৯ মহররম ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

নবীজীর শিক্ষা দিয়েই সন্ত্রাস ঠেকাবেন বাদশাহ সালমান

১৯ অক্টোবর, রয়টার্স, নিউজ উইক : বলা হয়ে থাকে, সারা পৃথিবীতেই সন্ত্রাসবাদ রপ্তানী করে সৌদি আরব। কিন্তু এবার তারা সন্ত্রাসবাদ মোকাবিলায় নবীজী হযরত মুহম্মদ (সা.) শিক্ষার উপর গুরুত্বারোপ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ইসলামের ব্যখ্যায় যেন উগ্রচিন্তা ও ইসলামের মোচড়গুলোকে ব্যবহার করা না হয়, সেজন্য এমন পরিকল্পনা হাতে নিয়েছেন সৌদি বাদশাহ সালমান।

রয়টার্সের এক প্রতিবেদন অনুযায়ী, বাদশাহ একটি কর্তৃপক্ষ গঠনের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন; যারা হাদিস শিক্ষার উপর জোর দেবে। জীবিত অবস্থায় মুহম্মদ (সা.) তার সাহাবীদের সঙ্গে যেসব কথা বলতেন সেগুলোকেই হাদিস বলা হয়। কর্তৃপক্ষের ব্যখ্যায় সৌদি সংস্কৃতি ও তথ্য মন্ত্রণালয় বলে, ‘ভূয়া এবং উগ্রবাদী লেখা কিংবা এমন কোন লেখা যা, ইসলামের শিক্ষাকে বিভ্রান্ত করে এবং অপরাধ করতে প্ররোচিত করে, সেগুলোকেই ঠেকাবে ওই কর্তৃপক্ষ।’

উগ্র ইসলামী চেতনার বিরুদ্ধে সৌদি আল সৌদ রাজ পরিবার দীর্ঘদিন ধরেই লড়াই করছে। কিন্তু ওই দেশটিতে প্রায় সময়ই ঘোরতর রক্ষণশীল, বয়ষ্ক ধর্মীয় নেতা এবং তরুণ প্রজন্মের মধ্যে উগ্রবাদ মাথাচাড়া দেয়।সাম্প্রতিক সময়গুলোতে সৌদি আরব যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে একাত্ম হয়ে মধ্যপ্রাচ্যে উগ্রসন্ত্রাসবাদী সংগঠন আইএসআই-এর বিরুদ্ধে লড়াই করেছে। এছাড়া ইয়েমেন ও আরব উপদ্বীপে আল-কায়েদার বিরুদ্ধেও সৌদি আরব লড়ছে। যদিও প্রকারন্তরে দেশটির সরকারের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসবাদের হুতা হিসেবে খ্যাত ওহাবিজম’কে অর্থায়র করারও অভিযোগ আছে।সম্প্রতি যুক্তরাজ্যের গণমাধ্যমে বলা হয়, ‘সারা বিশ্বে উগ্রবাদী ওহাবি চিন্তাধারাকে ছড়িয়ে দিতে মিলিয়ন মিলিয়ন ডলার খরচ করে সৌদি আরব। পশ্চিমের মুসলিম কম্যুনিটিগুলোকেই তারা সবচেয়ে বেশি লক্ষ্যবস্তু করে।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ