ঢাকা, শুক্রবার 20 October 2017, ৫ কার্তিক ১৪২8, ২৯ মহররম ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

মালয়েশিয়াকে হারিয়ে ফাইনালের পথে ভারত

স্পোর্টস রিপোর্টার : এশিয়া কাপ হকির ফাইনালে যাবার লড়াইয়ে অরো একধাপ এগিয়ে গেল সাবেক চ্যাম্পিয়ন ভারত। সুপার ফোরে খেলায় শক্ত প্রতিপক্ষ মালয়েশিয়াকে সহজেই হারিয়ে  জয়ের ধারায়  ফিরলো ভারত। গতকাল বৃহস্পতিবার মাওলানা ভাসানী হকি স্টেডিয়ামে  অুনষ্টিত খেলায় ভারত ৬-২ গোলের সহজ পার্থক্যে হারায় মালয়েশিয়াকে। সুপার ফোরের শুরুটা ভালো ছিল না ভারতের। দক্ষিণ কোরিয়ার সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করে একটু চাপেই পড়েছিল তারা। তারা সে চাপ থেকে বেড়িয়ে এসেছে টুর্নামেন্টে দুর্দান্ত খেলতে থাকা মালয়েশিয়াকে হারিয়ে। টানা চার ম্যাচ জয়ের পর প্রথম হারলো মালয়েশিয়া। আগের চার ম্যাচে যেভাবে ছকে বাধা হকি খেলেছে মালয়েশিয়া তাতে ভারতের বিপক্ষে ম্যাচটি তারা জমিয়ে দেবে মনে করেছিলেন সবাই। কিন্তু ভারতের গতিময় খেলার কাছে মালয়েশিয়া হয়ে পড়ে কোনঠাসা। ১৪ মিনিটে পিছিয়ে পড়ে মালয়েশিয়া। ১৯ মিনিটে হারমানপ্রিতের পেনাল্টি কর্নারের গোলে ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে যায় ভারত। ২৪ মিনিটে উথাপ্পা, ৩৩ মিনিটে গুরজান্ত সিং এবং ৪০ মিনিটে সুনিল সম্প্রিত গোল করে ভারতকে এগিয়ে দেন ৫-০ ব্যবধানে। ৫০ মিনিটে পেনাল্টি কর্নার থেকে ব্যবধান কমান মালয়েশিয়ার রহিম রাজি। চার মিনিট পর রামদানের দুর্দান্ত গোলের পর মনে হয়েছিল নাটকীয়তা ফিরিয়ে আনতে পারবে মালয়েশিয়া। কিন্তু ভারত সে সুযোগ দেয়নি। উল্টো শেষ মিনিটে গোল করে জয়ের ব্যবধান করে ৬-২ করে। পয়েন্ট টেবিলের অবস্থা অনুযায়ি সুপার ফোরে ভারত দুই ম্যাচ থেকে ৪ পয়েন্ট সংগ্রহ করে আছে টেবিলের শীর্ষে। চার দলের দৌঁড়ে এগিয়ে আছে র‌্যাংকিংয়ে ৬ নম্বরে থাকা দলটি। শনিবার তারা শেষ ম্যাচ খেলবে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বি পাকিস্তানের সঙ্গে।

ম্যাচ শেষে ভারতের কোচ মারিন নিজের প্রতিক্রিয়ায় বলেছেন, কোরিয়ার বিপক্ষে ড্রয়ের পর জয়ে ফেরা প্রয়োজন ছিল। বড় ব্যবধানের জয়টি খেলোয়াড়দের মানসিকভাবে উদ্দীপ্ত করবে। চতুর্থ কোয়ার্টারে কিছু ভুল ছিল। সামনের ম্যাচগুলোতে সেই ভুলের পুনরাবৃত্তি হবে না। আমরা এখনো উন্নতির মধ্যে রয়েছি। আমাদের দলের মূল বিষয় হলো শৃঙ্খলা। ফাইনালের বিষয়টি এখনো মাথায় আনছি না। পাকিস্তানের ম্যাচটিও গুরুত্বপূর্ণ। সেই ম্যাচে জেতার পর ফাইনাল নিয়ে ভাববো।অপরদিকে মালয়েশিয়ার কোচ স্টিফেন ভ্যান হুইজেন বলেছেন, টানা চার জয়ের পর ২-৬ গোলে হারাটা অবশ্যই হতাশার। ম্যাচের শুরু থেকে অনেক গোল মিস হয়েছে। চতুর্থ কোয়ার্টারে ম্যাচ ফিরলেও ততক্ষণ ফলাফল ভারতের দিকে ঝুকে গেছে। আমরা চারটি ম্যাচই খেলেছি তিনটায় রোদে আর ভারতের চারটি ম্যাচই সন্ধ্যায়। এটি অজুহাত হিসেবে বলছি না, ভুল করেছি এজন্য বড় ব্যবধানে হেরেছি।এখনো ফাইনাল খেলার সম্ভাবনা আমাদেও সামনে রয়েছে। কোরিয়ার সাথে ড্র করলেই আমাদের জন্য যথেষ্ট। সেজন্য তখন তাকিয়ে থাকতে হবে ভারত-পাকিস্তানের ম্যাচের দিকে। আমরা ড্র নয় কোরিয়াকে হারিয়ে ফাইনাল নিশ্চিত করতে চাই।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ