ঢাকা, শনিবার 21 October 2017, ৬ কার্তিক ১৪২8, ৩০ মহররম ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

লাহোরে না গেলে পুরো সিরিজেই বাদ

শ্রীলঙ্কার যে সকল ক্রিকেটার লাহোরে খেলতে যেতে রাজি হবে না, তাদের সিরিজের বাকি দুই টি-টোয়েন্টি ম্যাচের জন্যও বিবেচনা করা হবে না। শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ড বর্তমানে তাদের খেলোয়াড়দের আশ্বস্ত করার চেষ্টা করছে যে, ২৪ ঘণ্টার পাকিস্তান সফর অনিরাপদ হবে না। তবে অন্তর্বর্তীকালীন নির্বাচকদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, যারা কেবলমাত্র লাহোরে যেতে ইচ্ছুক; তারাই আবুধাবিতে বাকি দুই ম্যাচে খেলবে। প্রধান নির্বাচক গ্রায়েম লেব্রয় বলেছেন, ‘আমরা সিরিজের জন্য একই স্কোয়াড বেছে নেব, যে সকল খেলোয়াড় সততার সঙ্গে লাহোরে যেতে প্রস্তুত।’ অবশ্য এই সিদ্ধান্ত নির্বাচকদের চেয়ে বেশি বোর্ড এবং ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের কাছ থেকে এসেছে। যদি বোর্ড পুরো সিরিজের জন্য একই স্কোয়াডের নীতিতে অবিচল থাকে, তাহলে শ্রীলঙ্কার সম্ভবত নতুন অধিনায়ক থাকবে। অধিনায়ক উপুল থারাঙ্গা এরই মধ্যে লাহোরে খেলতে যাওয়ার ব্যাপারে অনীহার কথা জানিয়েছেন। লাহোরে যাওয়ার ব্যাপারে বোর্ড খেলোয়াড়দের সঙ্গে আলাদাভাবে কথা বলছে। লেব্রয় বলেছেন, ‘এই মুহূর্তে বোর্ড প্রতিটি খেলোয়াড়ের সঙ্গে আলাদাভাবে কথা বলছে। তাই নির্বাচকরা এখনো ঠিক জানেন না যে, কোন কোন খেলোয়াড়কে পাওয়া যাবে। তবে শুক্রবার সকালে আমাদের এটা জানা দরকার। এসএলসি নির্বাহী কমিটির দুই সদস্য খেলোয়াড়দের সঙ্গে যোগাযোগ করছেন।’ এই মুহূর্তে সংযুক্ত আরব আমিরাতে চলছে পাকিস্তান-শ্রীলঙ্কা ওয়ানডে সিরিজ। ওয়ানডের পর তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম দুটি হবে আবুধাবিতে। শেষ ম্যাচটি লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে। লাহোরের ম্যাচটি হবে ২৯ অক্টোবর। ২০০৯ সালে এই লাহোরেই শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট দলের বাসে বন্দুকধারীদের হামলার ঘটনা ঘটেছিল। এরপর এই প্রথম পাকিস্তান সফরে যাচ্ছে শ্রীলঙ্কা। অবশ্য এই আট বছরে শীর্ষ পর্যায়ের কোনো দলই পাকিস্তান সফরে যায়নি। ইন্টারনেট।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ