ঢাকা, রোববার 22 October 2017, ৭ কার্তিক ১৪২8, ১ সফর ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

আফগানিস্তানে হামলার ঘটনায় জাতিসংঘ যুক্তরাষ্ট্রের নিন্দা

২১ অক্টোবর, রয়টার্স : আফগানিস্তানে পৃথক দুই মসজিদে সংঘটিত গত শুক্রবারের হামলায় সবশেষ অন্তত ৭২ জন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। ব্রিটিশ বার্তা সংস্থার খবর থেকে জানা গেছে, হামলায় আহত হয়েছেন আরও অন্তত ৬০ জন।
রাজধানী কাবুল এবং ঘোর প্রদেশে সংঘটিত ওই দুই আত্মঘাতী কর্মকা-ে এখনও কেউ দায় স্বীকার করেনি। ঘটনার নিন্দা জানিয়েছে জাতিসংঘ এবং যুক্তরাষ্ট্র। হামলায় হতাহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।
কাবুল পুলিশের মুখপাত্র আবদুল বশির মুজাহিদ জানান, রাজধানীর পশ্চিমাংশে দাশ্ত-ই-বারচি এলাকায় গতকাল মাগরিবের নামাজের সময় প্রথম হামলাটি হয় শিয়া সম্প্রদায়ের একটি মসজিদে। হামলাকারী মসজিদে ঢুকে আত্মঘাতী বিস্ফোরণ ঘটায়। এতে কমপক্ষে ৩৯ জন নিহত হন। আহত হন ৪৫ জন। হতাহতদের মধ্যে নারী ও শিশু রয়েছে।
স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র নাজিব দানিশ বলেন, তিনি মসজিদের শৌচাগারে ছিলেন। এমন সময় হঠাৎ বিস্ফোরণের শব্দ শুনতে পান। পরে মসজিদের মূল প্রাঙ্গণে গিয়ে রক্তাক্ত মরদেহ দেখেন তিনি।অন্য হামলাটি হয়েছে দেশটির মধ্যাঞ্চলের ঘোর প্রদেশে সুন্নি সম্প্রদায়ের একটি মসজিদে। এতে নিহত হন অন্তত ৩৩ জন। আহত হয়েছেন ১০ জনের বেশি। আঞ্চলিক গভর্নর মহসিন দানিশায়ার জানান, স্থানীয় পুলিশের এক জ্যেষ্ঠ কমান্ডারই সম্ভবত এই হামলার লক্ষ্য ছিলেন। বিস্ফোরণে তিনিও নিহত হয়েছেন। এখনও কেউ দুই আত্মঘাতী হামলার দায় স্বীকার করেনি। তবে কাবুল ও অন্যান্য প্রদেশের শিয়া মসজিদে হামলা চালানোর অভিযোগ রয়েছে আইএসের বিরুদ্ধে। নৃশংস দুই হামলার নিন্দা জানিয়েছে জাতিসংঘ এবং যুক্তরাষ্ট্র।
আফগান জনতা ও সরকারের প্রতি সংহতি জানিয়ে জাতিসংঘ মহাসচিবের স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে হতাহতদের স্বজনদের জন্য গভীর শোক ও সমবেদনা জানানো হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, আফগানদের ধর্মীয় বিশ্বাস সহিংস আক্রমণের স্বীকার হচ্ছে। বিবৃতিতে মসজিদে হামলার ঘটনায় দোষীদের বিচারের আওতায় আনার আহ্বান জানানো হয়েছে।মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের মুখপাত্র এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, হতাহতদের পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। সরকার ও নিরাপত্তা বাহিনীকে এ ধরনের হামলা ঠেকাতে পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান জানানো হয়েছে ওই বিবৃতিতে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ