ঢাকা, রোববার 22 October 2017, ৭ কার্তিক ১৪২8, ১ সফর ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

গাইবান্ধায় আমনক্ষেতে পোকার আক্রমণে দিশেহারা কৃষক

গাইবান্ধা সংবাদদাতা: সদর উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে আমন ক্ষেতে পোকার আক্রমণে দিশেহারা হয়ে পড়েছে কৃষক।
কীটনাশক ব্যবহার করেও মিলছে না সমাধান! ফলে বাধ্য হয়েই পরামর্শ নেওয়ার জন্য ছুটছেন কীটনাশকের দোকানগুলোতে। না বুঝে কীটনাশক দোকানীরাও দিচ্ছেন যেন তেন দায়সারা পরামর্শ দিয়ে কৃষকের হাতে তুলে দিচ্ছেন নামি বেনামি কোম্পানির কীটনাশকের ফাইল। তাতেও সুফল মিলছে না কৃষকের। তাই বাধ্য হয়ে দোষারূপ করছেন মাঠ পর্যায়ের কৃষি কর্মকর্তাদের।
অভিযোগ রয়েছে মাঠ পর্যায়ের কৃষি কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে, তারা কৃষকদের জমিতে গিয়ে কোন ধরনের পরামর্শই দিচ্ছেন না। কৃষি কর্মকর্তাদের তদারকির বিষয়ে সদর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সাদেকুল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, মাঠ পর্যায়ে কৃষি কর্মকর্তাদের কাজ করার জন্য পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। যদি তারা কাজ না করে, তাহলে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
খোলাহাটী ইউনিয়নের কৃষক রেজাউন্নবী জানান, পোকার আক্রমণে আমন ধানের পাতা মরে কোকরা হয়ে সাদা হয়ে যাচ্ছে এবং ধানের শীষ বের হচ্ছে না। ধান গাছের পাতা ও থোরে এক শ্রেণির পোকা বাসা বাঁধতে দেখা গেছে। এতে আক্রান্ত জমির ফলন ক্ষেত্র বিশেষ ৬০-৭০ ভাগ বিনষ্ট হবে।
ঘাগোয়া ইউনিয়নের কৃষক মেছের আলী জানান, ধানের পাতাগুলো কোকরা হয়ে সাদা হয়ে যাওয়ায় তা কেটে গরুর খাবার হিসাবে ব্যবহার করা হচ্ছে।
তিনি আরও বলেন, এবার শুরুতেই যে খড়ের দাম হয়েছে তাতে মনে হয় গরু বিক্রি করা ছাড়া কোন উপায় নেই।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ