ঢাকা, রোববার 22 October 2017, ৭ কার্তিক ১৪২8, ১ সফর ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

উলিপুরে মাদক ব্যবসায়ী ও গ্রামবাসীর সংঘর্ষে আহত- ১০

উলিপুর (কুড়িগ্রাম) সংবাদদাতা: মাদক সেবন ও মাদক ব্যবসায় বাধা দেয়ায় কুড়িগ্রামের উলিপুরে কথিত মাদক সম্রাট কাসেম বাহিনী ও গ্রামবাসীর সংঘর্ষে উভয় পক্ষের কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়েছে। আহতদের উলিপুর ও কুড়িগ্রাম সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে হাসেন আলী ও কাসেমের  অবস্থায় গুরুত্বর। এ ঘটনায় উলিপুর থানায় পৃথক দু’টি মামলা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে গত শুক্রবার উপজেলার ধামশ্রেণী ইউনিয়নের পোদ্দারপাড়া নূর জামে মসজিদ প্রঙ্গনে।
এলাকাবাসীর একাধীক সূত্রে জানাগেছে, ওই প্রামের চোরা চালান ও মাদক দ্রব্যের একাধীক মামলার আসামী কথিত মাদক স¤্রাট কাসেম আলী ও তার পুত্র একরামুল হক জেলার রৌমারী সীমান্ত থেকে ভারতীয় বিভিন্ন ব্রান্ডের মাদক দ্রব্য নিয়ে এসে এলাকায় একটি সংঘবদ্ধ মাদকচক্র গড়ে তুলে দীর্ঘাদন ধরে ব্যবসা চালিয়ে আসছে। এ ব্যবসায় কাউকে তোয়াক্কা করছেনা তারা , এমনকি পুলিশ পর্যন্ত তাদের কাছে দূর্বল। এদের ভয়ে এলাকার মেয়েরা স্বাধীন ভাবে চলাফেরা করতে পারেনা। রাস্তায় বের হলেই উত্যক্তের শিকার হতে হয় মেয়েদের। যেন এক ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছে তারা। এমতাবস্থায়, গত ২৬ জুলাই রাত ১০ টায় ওই গ্রামের মাহাম্মদ আলীর নাতি আল-আমিন (১৬) তার চাচা সাহেব আলীর বাড়ী যাওয়ার পথে ওই চক্রটির মুখমুখি হয়। এ সময় তার হাতে থাকা টর্চ-লাইটের আলোয় চক্রটি মাদকের মালামাল নিয়ে দৌঁড়িয়ে পালিয়ে যায়। পরক্ষণেই এদের মধ্যে একরামুল ও মাদক স¤্রাট কাশেম এসে আল-আমিনকে বেধরক পিটিয়ে আহত করে। টর্চ-লাইটের আলো জ্বলানই ছিল তার অপরাধ। এর জের ধরে ২৮ জুলাই তারা সংঘবন্ধ হয়ে মাহাম্মদ আলীর বাড়ী-ঘরে দফায় দফায় হামলা চালিয়ে লুটে নেয় ৬টি গরু, ২টি মটর সাইকেল, নগদ ২ লাখ ৮০ হাজার টাকা, ঘরের আসবাব পত্র ও তান্ডব চালিয়ে ভাংচুর করেছে ৪টি বাড়ী। ওই দিন পরিবারের মহিলা ও শিশুরাও রেহাই পায়নি তাদের হিং¯্র থাবা থেকে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ