ঢাকা, সোমবার 23 October 2017, ৮ কার্তিক ১৪২8, ২ সফর ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

রাবি ছাত্রদলের উপর ছাত্রলীগের হামলা বিচার দাবিতে ছাত্রদলের স্মারকলিপি

রাবি রিপোর্টার: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে(রাবি) ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের শুভেচ্ছা জানিয়ে লাগানো ব্যানার-ফেস্টুনে অগ্নিসংযোগ ও নেতা-কর্মীদের উপর হামলার বিচার দাবি করে উপাচার্য বরাবর স্মারকলিপি দিয়েছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রদল। রবিবার বিকেলে রাবি প্রক্টরের নিকট এ স্মারকলিপি হস্তান্তর করা হয়।
স্মারকলিপিতে ছাত্রদল নেতাকর্মীদের উপর হামলকারীদের চিহ্নিত করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তিসহ ছাত্রলীগের অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার, আইন অমান্য করে প্রোগ্রাম বন্ধ এবং ছাত্রদলের সহঅবস্থান নিশ্চিত  করার দাবি জানিয়েছে রাবি ছাত্রদল।
একই ঘটনায় নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় জাতীয়তাবাদী শিক্ষক ফোরাম। ফোরামের সভাপতি প্রফেসর কে বি এম মাহবুবুর রহমান ও সেক্রেটারি প্রফেসর মামুনুর রশিদ সাক্ষরিত বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘ক্যাম্পাসে সকল ছাত্র সংগঠনের সহাবস্থান ও সমান অধিকার নিশ্চিত করা প্রশাসনের মৌলিক দায়িত্ব। কিন্তু  আমরা উদ্বেগের সাথে লক্ষ্য করছি যে রাবি প্রশাসনের একপেশে নীতির কারণে  সরকারি দলের ছাত্র সংগঠনের দৌরাত্বে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় পরিবার বিচলিত। এরই ধারাবাহিকতায় গত রাতে তারা ছাত্রদলের ব্যানারে অগ্নিসংযোগ করেছে। আমরা এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি ।’
এর আগে গত শনিবার রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের গেট সংলগ্ন বিনোদপুরে ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের শুভেচ্ছা জানাতে ব্যানার ফেস্টুন লাগাতে গেলে রাবি ছাত্রলীগের কয়েকশ নেতা-কর্মী ধারালো অস্ত্র ও লাঠিসোটা নিয়ে হামলা করে ও ব্যানার ফেস্টুন ছিড়ে ফেলে তাতে অগ্নিসংযোগ করে। হামলায় ছাত্রদলের ১০-১২জন নেতা-কর্মী আহত হন বলে জানা গেছে।
রাবির ভর্তি পরীক্ষায় জালিয়াতি
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষায় প্রবেশপত্রের ছবি পরিবর্তন করে পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার দায়ে একজনকে আটক করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। রোববার সকালে দ্বিতীয় বিজ্ঞান ভবনে ২২৫ নং কক্ষের ই-১ ইউনিটের প্রথম শিফটের পরীক্ষা চলাকালে আটক করে তাকে মতিহার থানা পুলিশে সৌপর্দ করা হয়। আটককৃত শিক্ষার্থী রবিউল ইসলামের বাড়ী জামালপুর। তবে তার বিস্তারিত পরিচয় জানা যায়নি।
বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর লুৎফর রহমান জানান, ই-১ ইউনিটের প্রথম শিফটের ভর্তি পরিক্ষায় দ্বিতীয় বিজ্ঞান ভবনের ২২৫ নম্বর রুমে ১৮১৬৬ রোলের শিক্ষার্থী ছিলেন আব্দুল মতিন। তার (মতিন) প্রবেশপত্রের ছবি পরিবর্তন করে পরিক্ষায় অংশ নেয় জালিয়াতি চক্রের সদস্য রবিউল ইসলাম। পরীক্ষার হলের দায়িত্বরত শিক্ষকগণ তার ছবি দেখে সন্দেহ হলে আমাকে জানায়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ শেষে  সত্যতা পাওয়ায় মতিহার থানা পুলিশে সৌপর্দ  করি।
এ বিষয়ে মতিহার থানার (ভারপ্রাপ্ত) কর্মকর্তা মেহেদি হাসান জানান, জালিয়াতির অভিযোগে রবিউল নামের জালিয়াতী চক্রের সদস্যকে আটক করেছি। থানায় জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। সত্যতা মিললে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ