ঢাকা, বুধবার 25 October 2017, ১০ কার্তিক ১৪২8, ৪ সফর ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

শিশুর কান্নায় জাগল মাতৃত্ববোধ

শানজি, ১০ অক্টোবর : চিনের শানজি প্রদেশের একটি আদালতে এক মহিলার বিচার চলছিল। মাকে কাঠগড়ায় তোলার পর থেকেই বিচারক তাকে টানা প্রশ্ন করে যাচ্ছিলেন। কিন্তু ততক্ষণ মায়ের কোলছাড়া তার চারমাসের দুধের শিশুটি। অতক্ষণ সময় পেরিয়ে যাওয়ায় সে ক্রমাগতই কেঁদে যাচ্ছিল। এই দৃশ্য খানিকক্ষণ দেখার পর নিজেকে আর স্থির রাখতে পারেননি পুলিশ কর্মকর্তা (মহিলা) হাও লিনার। নিজেও মা, তাই ছোট্ট শিশুটিকে ওভাবে পড়ে পড়ে কাঁদতে দেখে তাঁর মধ্যেও জেগে ওঠে মাতৃত্ববোধ। খানিক পর তিনি উপলব্ধি করলেন শিশুটির খিদে পেয়েছে, আর তা বুঝেই সময় নষ্ট না করে বাচ্চাটিকে আদালতকক্ষের মধ্য নিজের স্তন্যপান করিয়ে বিরল নজির স্থাপন করলেন ওই মহিলা পুলিশ। ইতিমধ্যেই ছবিটি ভাইরাল হয়ে গেছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। অবশ্য আচমকাই হাও স্তন্যপান করাননি, তার আগে বাচ্চাটির মায়ের কাছ থেকে তিনি অনুমতিও নেন। তারপর সম্মতি মেলায় শিশুটিকে নিয়ে আদালতকক্ষের এক পাশে সরে যান তিনি। শিশুটিকে ব্রেস্টফিডিং করানোর দৃশ্যটি ক্যামেরাবন্দি করেছেন হাওয়ের এক সহকর্মী। খাওয়ার পর শিশুটির কান্না বন্ধ হয়, তার মা-ও কিন্তু ক্রমাগত কাঠগড়া থেকে দাঁড়িয়েও শিশুটির দিকে নজর রেখে যাচ্ছিল। তবে আদালতকক্ষের মধ্যে কোনও মহিলা পুলিশের এহেন আচরণ এই প্রথমবার। তাও আবার কোন কয়েদির সন্তানের জন্য এতটা মমত্ব। হাও লিনার আরও একবার প্রশান করলেন মা মা-ই হন, কিংবা মাতৃত্ববোধেরও কোনও সীমারেখা হয় না, স্থান-কাল-পাত্রের ব্যবধানে। হাওয়ের এহেন কাজকর্মের জন্য বলাই বাহুল্য তিনিও সকলের প্রশংসা কুড়িয়েছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ