ঢাকা, বুধবার 25 October 2017, ১০ কার্তিক ১৪২8, ৪ সফর ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

ইরান কালচারাল সেন্টারে শতবর্ষী স্মৃতিমান নারীর সংবর্ধনা

গত ২০ অক্টোবর শুক্রবার, বিকাল ৪টায় জাতীয় আধ্যাত্মিক কবিতা পরিষদের উদ্যোগে ও ইরান কালচারাল সেন্টারের সহযোগিতায় ধানমন্ডি ইরান কালচারাল সেন্টার মিলনায়তনে ইতিহাসবিদ মোহাম্মদ আশরাফুল ইসলামের মা, প্রবীণ স্মৃতিমান মহীয়সী নারী মোসাম্মাৎ জামিলা খাতুনকে সংবর্ধনা দেয়া হয়। সাবেক সচিব ড. কামাল উদ্দিন আহমেদের সভাপতিত্বে ও উক্ত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ইরান কালচারাল সেন্টারের কাউন্সেলর সৈয়দ মুসা হোসেইনী, বিশেষ অতিথি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্সি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের সাবেক চেয়ারম্যান ও প্রক্টর প্রফেসর ড. কে. এম. সাইফুল ইসলাম খান। জাতীয় আধ্যাত্মিক কবিতা পরিষদের সভাপতি কবি মহিউদ্দিন আকবরের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সংবর্ধনা সভায় আলোচনা করেন সিএনসির নির্বাহী পরিচালক সাহিত্যিক মাহবুবুল হক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্সি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের সহকারী অধ্যাপক আহসানুল হাদী, পেট্রোবাংলার ডিজিএম মাওলানা মুখলেছুর রহমান, ড. হালিম দাদ খান, ড. জহিরুদ্দিন মাহমুদ, সাঈদ আহমদ আনীস, এহতেশাম আহমেদ পারভেজ প্রমুখ। নিবেদত কবিতা পাঠ করেন কবি আতিক হেলাল, কবি জাফর পাঠান, কবি আমিন-আল-আসাদ, ইবনে আবদুর রহমান এবং ক্ষুদে আবৃত্তিকার আঞ্জুমান ইমলাম। অনুষ্ঠানে প্রবীণ মহীয়সী মোসাম্মাৎ জামিলা খাতুনকে জাতীয় আধ্যাত্মিক কবিতা পরিষদের পক্ষ থেকে সংগঠনের সভাপতি, সিএনসির পক্ষ থেকে নির্বাহী পরিচালক মাহবুবুল হক ও রিয়েল পিকচার ইউনিট এর পক্ষ থেকে এর চেয়ারম্যান মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম মিশা মানপত্র, ক্রেস্ট ও সনদ দিয়ে সংবর্ধনা জ্ঞাপন করেন। প্রথম স্মৃতির অধিকারী ৯৭ বছর বয়ষ্কা মোসাম্মাৎ জামিলা খাতুনকে অনর্গল ফার্সি শের বাংলা অর্থসহ পেশ ছাড়াও ৪০ হাদীস, আল্লাহতায়ালার ৯৯ নাম, নাগরী ভাষা ও বাংলা ভাষায় দীর্ঘ মোনাজাতমূলক কবিতা ইত্যাদি পেশ করে সকলের প্রশংসা অর্জন করেন। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ