ঢাকা, শনিবার 28 October 2017, ১৩ কার্তিক ১৪২8, ৭ সফর ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

আমার এই ইনিংস মূল্যহীন : সৌম্য সরকার

স্পোর্টস রিপোর্টার : দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে প্রথম টি-টোয়েন্টিতে আশা জাগিয়েও হারতে হলো বাংলাদেশকে। অনেকদিন পর সৌম্য সরকার জ্বলে উঠলেও পাশে পেলেন না কাউকে। দারুণ এক ইনিংস খেলার পরও তাই হতাশা লুকালেন না বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান। ইমরুল কায়েসের সঙ্গে উদ্বোধনী জুটিতে নেমেছিলেন সৌম্য। ১৯৬ রানের লক্ষ্যে ছোটা বাংলাদেশকে দারুণ সূচনা এনে দেন তিনি। তার দুর্দান্ত ব্যাটে প্রথম পাওয়ার প্লের ৬ ওভারে ১ উইকেটে ৫৫ রান তোলে বাংলাদেশ। ৯.১ ওভারে বাংলাদেশের স্কোরবোর্ডে ৯২ রান এনে দেওয়ার পর ফিরতে হয় সৌম্যকে। মাত্র ৩১ বলে ৫ চার ও ২ ছয়ে ৪৭ রান করেন এই ওপেনার। হাফসেঞ্চুরির এই আক্ষেপকে ছাড়িয়ে গেছে দলের জয় না পাওয়ার হতাশা। তাই সংবাদ সম্মেলনে সৌম্য বলেন, ‘যদি আমি বড় ইনিংস খেলতে পারতাম এবং দল জিতে যেতো, তাহলে আমি আমার ইনিংস নিয়ে কথা বলতাম। আমি শেষ করতে পারিনি, দলও জিতলো না। এই ইনিংসের কোনও মূল্য নেই।’ শুরুটা দারুণ হয়েছিল মনে করছেন সৌম্য। কিন্তু শেষ ১০ ওভারে সেই পুঁজি কাজে লাগাতে পারেনি বাংলাদেশ। মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যানরা ভূমিকা রাখলে ফল অন্য কিছু হতে পারতো জানান সৌম্য, ‘ শেষ ১০ ওভারে যদি তিন থেকে ছয় নম্বর ব্যাটসম্যানরা রান করতে পারতো, তাহলে আমাদের জন্য কাজটা সহজ হতো।’ প্রথম টি-টোয়েন্টি সিরিজ হেরে শুরু হলেও সান্ত¡না যে, টেস্ট ও ওয়ানডের চেয়ে ভালো পারফরম্যান্স করেছে বাংলাদেশ। দলের সামর্থ্য নিয়ে সৌম্য বলেছেন, ‘তারা আজ (বৃহস্পতিবার) ১৯৫ রান করলো। আমরা করলাম ১৭৫। অবশ্যই আমাদের সামর্থ্য আছে। যদি মিডল অর্ডার থেকে কিছু রান যোগ হতো, তাহলে আমরা সহজে ম্যাচ জিততাম। আমরা যে ২০০ রান করতে পারি, এই আত্মবিশ্বাস এসে গেছে।’ কিছু না পাওয়ার এই সফরে বাংলাদেশের প্রাপ্তির শেষ সুযোগ আগামী ২৯ অক্টোবর। পচেফস্ট্রুমে দ্বিতীয় ও শেষ টি-টোয়েন্টি খেলবে তারা।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ