ঢাকা, রোববার 29 October 2017, ১৪ কার্তিক ১৪২8, ৮ সফর ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

আওয়ামী লীগের ইতিহাস রক্ত  নিয়ে খেলার কলঙ্কিত ইতিহাস      -অধ্যাপিকা রেহানা প্রধান

 

রাজনীতির ইতিহাসে ২৮ অক্টোবর আওয়ামী লীগের কলঙ্কিত ইতিহাস। ক্ষমতায় যাওয়ার পথ তৈরী করতে ২০০৬ সালের ২৮ অক্টোবর পল্টন ময়দানে প্রকাশ্যে দেশপ্রেমিক জনতার উপর নির্মম হত্যাযজ্ঞ চালায়। যে হত্যাকা- বাংলাদেশকে কাঁদিয়ে বিশ্ব মানবতাকে কাঁদিয়েছে। তরুণ যুবকদের উপর লগি-বৈঠা চালিয়ে লাশের উপর নৃত্য ও উল্লাস করেছে। ২৮ অক্টোবরের ধারাবাহিকতায় আজো হত্যা, গুম-খুনের রক্তে আওয়ামী সরকারের ক্ষমতার চাদর রক্তে লাল। সুতরাং আওয়ামী লীগের ইতিহাস রক্ত নিয়ে খেলার ইতিহাস। তিনি বলেন, আজ ১১ বছর পার হলেও লগি-বৈঠার নির্মম হত্যাযজ্ঞের বিচার জাতি দেখতে পায়নি। আওয়ামী লীগের নিদারুণ ক্ষমতার লোভ জাতিকে ন্যায়বিচার থেকে বঞ্চিত করেছে। তিনি বলেন, আবারো ক্ষমতায় যাওয়ার স্বপ্ন দেখে ইসিকে আওয়ামী লীগের ১১ দফা প্রস্তাব জনগণ প্রত্যাখ্যান করেছে। জনগণ তাদের ভোটাধিকার ফেরত চায়। গণতন্ত্র ফেরত চায়। তত্ত্বাবধায়ক সরকার ফেরত চায়। কিন্তু জালিমশাহীকে এক মুহূর্তও ক্ষমতায় দেখতে চায় না। মনে রাখবেন জনগণ এবার বুলেটের জবাব ব্যালটে বুঝিয়ে দেবে। সুতরাং সময় থাকতে পদত্যাগ করুন। অন্যথায় জনতার গণবিপ্লবে অনিবার্য পতন ঘটতে পারে।  

গতকাল শনিবার সকাল ১১ টায় পল্টনস্থ জাগপা ঢাকা মহানগর কার্যালয়ে যুব জাগপা আয়োজিত ‘রক্তাক্ত ২৮ অক্টোবর ও বর্তমান প্রেক্ষাপট’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। যুব জাগপার সভাপতি ফাইজুর রহমানের সভাপতিত্বে যুব জাগপার নগর সভাপতি খোরশেদ আলম সুমনের পরিচালনায় সভায় বক্তব্য রাখেন জাগপা সাধারণ সম্পাদক খন্দকার লুৎফর রহমান, জাগপার সিনিয়র সহ সভাপতি ব্যারিস্টার তাসমিয়া প্রধান, যুব বিষয়ক সম্পাদক বেলায়েত হোসেন মোড়ল, জাগপা নেতা মো. আশরাফ আলী খান, কেন্দ্রীয় যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইবরাহিম জুয়েল, যুব জাগপার সহ সভাপতি সাইদুজ্জামান কবির, যুব জাগপা নগর সভাপতি নজরুল ইসলাম বাবলু, নগর সহ সভাপতি ইসহাক মীর, প্রচার সম্পাদক বিপুল সরকার প্রমুখ। প্রেসবিজ্ঞপ্তি। 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ