ঢাকা, সোমবার 30 October 2017, ১৫ কার্তিক ১৪২8, ৯ সফর ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

শাহজাদপুর পাইলট হাইস্কুল মাঠে জলাবদ্ধতা শিক্ষার্থীদের খেলাধুলা বন্ধ

শাহজাদপুর (সিরাজগঞ্জ) সংবাদদাতা: শাহজাদপুর পৌর সদরের চালা শাহজাদপুর মহল্লায় অবস্থিত শাহজাদপুর মডেল পাইলট হাইস্কুল মাঠটিতে প্রায় ২ মাস ধরে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। সেচের ব্যবস্থা না নেয়ায় ১০ বিঘা আয়তনের শত বছরের ঐতিহ্যবাহী এ মাঠটিতে ২ মাস ধরে শিক্ষার্থীদের খেলাধূলা,শরীরচর্চা ও বিনোদন মূলক কর্মকা- বন্ধ রয়েছে। স্কুল সূত্রে জানা যায় এই মাঠটির অর্ধেক মালিকানা শাহজাদপুর মডেল পাইলট হাই স্কুলের। আর বাকি অর্ধেক জন সাধারণের জন্য উন্মুক্ত করে দিয়ে দান করেন তত্বকালীন দানবীর খান বাহাদুর আহম্মদ আলী খান। এরপর থেকেই এ মাঠটি শাহজাদপুরের সর্ব সাধারণের উন্মুক্ত খেলার মাঠে পরিণত হয়। সেই থেকে এ মাঠটি যুগ যুগ ধরে এলাকার খেলাধুলা ও বিনোদনের এক তীর্থ ভূমিতে পরিণত হয়। বিভিন্ন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, রবীন্দ্র জয়ন্তীতে গ্রামীণ মেলা, পহেলা বৈশাখ উদযাপন এ মাঠটিতেই হয়ে থাকে। এ ছাড়া জাতীয় দলের খেলোয়ারদের সমন্বয়ে ক্রিকেট ও ফুটবল খেলা এ মাঠটিতে প্রায় প্রতি বছরই অনুষ্ঠিত হয়। বয়বৃদ্ধরা জানায়, এক সময় এ মাঠের দু‘পাশ দিয়ে পানি নিষ্কাশনের জন্য জেলা পরিষদের ক্যানেল ছিল। এখন তা দখল ও ভরাট হয়ে গেছে। ফলে একটু বৃষ্টি হলেই এ মাঠ সহ এর আশপাশের প্রায় শতাধিক বিঘা আবাদী জমিতে বৃষ্টির পানি জমে সৃষ্টি হয় ভয়াবহ জলাবদ্ধতার। সেচ না দিলে তা থাকে ৪/৫ মাস। এ সময় এ মাঠে সব ধরণের খেলাধূলা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন বন্ধ থাকে। এতে শাহজাদপুর পৌর শহরের যুবক ও কিশোররা বিনোদন বিমুখ হয়ে নানা অপরাধে জড়িয়ে পড়ে। এ ছাড়া শাহজাদপুর উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার পক্ষ থেকে সকল প্রকার খেলাধুলা এই মাঠেই আয়োজন করে। জলাবদ্ধতার কারণে তাদের এ উদ্যোগও এ সময় বন্ধ থাকে। শাহজাদপুরের সকল খেলাধূলা ও বিনোদনের কেন্দ্রবিন্দু এই মাঠটির এ বেহালদশা নিরশনে কোন উদ্যোগ না নেয়ায় বিনোদন ও খেলাধূলা বঞ্চিত যুবক ও কিশোররা তাই ঝুকে পড়ছে নানা অপরাধ কর্মে। এ ছাড়া নেশায় আসক্ত, সন্ত্রাসী কর্মকান্ডেও তারা ক্রমশ জড়িয়ে পড়ছে।
এ ব্যাপারে শাহজাদপুর উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক আসলাম আলী বলেন, দীর্ঘদিন ধরে এই মাঠে জলাবদ্ধতার কারণে খেলাধূলা বন্ধ রয়েছে। বিষয়টি উপজেলা উপজেলা প্রশাসনকে জানানো হয়েছে। তারা শুধু আশ্বাসই দিয়েছেন। এ ছাড়া কোন সাড়া মেলেনি।  এ ব্যাপারে শাহজাদপুর পৌরসভার ভারপ্রাপ্ত মেয়র নাসির উদ্দিন বলেন, বৃষ্টি মৌসুম শেষ হলে এ জলাবদ্ধতা নিরসনের জন্য সেচের ব্যবস্থা করা হবে। 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ