ঢাকা, বুধবার 1 November 2017, ১৭ কার্তিক ১৪২8, ১১ সফর ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত ট্রান্সফরমার্স রোবট

আবু হেনা শাহরীয়া : বিভিন্ন ক্ষেত্রে রোবটের ব্যবহার নতুন কিছু নয়। তবে এবার এটি ব্যবহার করা হবে যুদ্ধের মাঠে। ইউক্রেনের সামরিক কর্মকর্তারা অ্যাডাপ্টেবল যুদ্ধ রোবট উন্মোচন করেছেন, যেটি ট্রাভেল যান এবং এমনকি অস্ত্রযান হিসেবে রূপান্তরিত হতে পারে। যুক্তরাষ্ট্রের ডিফেন্স ওয়ানের তথ্যানুসারে, ‘ফ্যান্টম’ নামের এই রোবটটি যুদ্ধকৌশল সংক্রান্ত মনুষ্যবিহীন বহুমুখী যান এবং দেখতে ট্যাংকের মতো, ছয়টি চাকা রয়েছে এবং এটি অ্যান্টি-ট্যাংক অস্ত্র, গ্রেনেড লাঞ্চার বা মেশিন গান বহন করতে পারে। সম্প্রতি রোবটটি মার্কিন আর্মির অ্যাসোসিয়েশনে প্রদর্শিত হয় এবং আগামী বছর এটি যুদ্ধক্ষেত্রে ব্যবহৃত হতে পারে। ফ্যান্টম টানা ২০ কিলোমিটার (১২.৪ মাইল) পর্যন্ত চলতে পারে এবং সর্বোচ্চ গতি ঘণ্টায় ৩৮ কিলোমিটার।
বহুমুখী এই যুদ্ধ যান দূর থেকে পরিচালনা করা যায়, এটি দিনে ও রাতেও কাজ করতে পারে এবং ১ কিলোমিটারের (০.৬ মাইল) বেশি দূর থেকে লক্ষ্যবস্তুতে ফায়ার করতে পারে। নিরাপদ রেডিও চ্যানেল ব্যবহার করে এটিকে দূর থেকে পরিচালনা করা যায় অথবা ৫ কিলোমিটার দীর্ঘ ফাইবার ক্যাবল ব্যবহার করেও পরিচালনা করা যায়। নির্মাতাদের মতে, এটি যুদ্ধক্ষেত্রে গোলাবারুদের পরিবহন, যুদ্ধের মিশন সম্পন্ন করা, এমনকি যুদ্ধক্ষেত্র থেকে আহত সৈন্যদের উদ্ধার করতে পারে।
রোমান রোমানভ, হেড অব এসসি বলেন ‘বিভিন্ন উদ্দেশ্যে ব্যবহার সুবিধার মনুষ্যবিহীন এই যুদ্ধ যান, প্রযুক্তি যুগের চ্যালেঞ্জগুলোর একটি ছিল। বর্তমানে সৈন্যরা তাদের জীবন বিপন্ন করে যে ঝুঁকিগুলো নিয়ে থাকে, সেগুলো নানা ভাবে সম্পাদনে এটি খুবই কার্যকরী।’ ডিফেন্স ওয়ানের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, যুদ্ধক্ষেত্রের নতুন এই রোবট যান, রাশিয়া সমর্থিত বাহিনীর বিরুদ্ধে ব্যবহার করা হতে পারে। রাশিয়ারও রোবট যুদ্ধ যান রয়েছে তবে তারা এখনো পরিষ্কার করে কিছু বলেনি যে, সেগুলো যুদ্ধে ব্যবহারের জন্য প্রস্তুত কিনা। সেন্টার ফর নেভাল অ্যানালাইসিস এর গবেষক স্যামুয়াল বেনডেট বলেন, ‘ইউক্রেন মনুষ্যবিহীন যুদ্ধ সরঞ্জাম তৈরি করছে, যা তাদেরকে লড়তে সাহায্য করবে।’ যুক্তরাষ্ট্র কয়েক বছর ধরেই রোবটিক যুদ্ধ যান ও সরঞ্জাম নিয়ে তাদের পরীক্ষা চালিয়ে আসছে। গত বসন্তে ক্যালিফোর্নিয়ার একটি নেভি ক্যাম্পে গবেষকরা ৫০টি রোবটিক পরীক্ষা সম্পন্ন করেছে। মার্কিন নৌবাহিনীর মতে, সম্মুখ যুদ্ধে উচ্চতর প্রযুক্তি ড্রোন এবং অস্ত্রচালিত রোবট ব্যবহারে সৈন্যদের জীবন রক্ষা করতে সহায়ক হবে। লড়াইয়ের প্রথম দিকে অবস্থান করা রোবটিক অস্ত্রগুলো প্রতিপক্ষকে কাঁপিয়ে দিতে পারবে। এছাড়াও মার্কিন নৌবাহিনী এমন ধরনের স্পিডবোট পরীক্ষা করছে, যা গোপন সাবমেরিনে রূপান্তরিত হতে পারে। এদিকে নতুন আরেকটি কুকুর রোবট বানাচ্ছে সনি। স্মার্ট হোম ডিভাইসের সঙ্গে কাজ করবে এই রোবটটি। ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল-এর বরাত দিয়ে প্রযুক্তিবিষয়ক সাইট ভার্জ-এর প্রতিবেদনে বলা হয়, সামনের মাসেই রোবটটি উন্মোচনের পরিকল্পনা রয়েছে ইলেক্ট্রনিক পণ্য নির্মাতা জাপানি প্রতিষ্ঠানটির। এর আগে নব্বই ও দুই হাজারের দশকে ‘আইবো’ কুকুর রোবট বাজারে এনেছে সনি। এই রোবটগুলোরই উন্নত সংস্করণ হবে নতুন কুকুর রোবট।
প্রতিবেদনে বলা হয়, নতুন রোবটে উন্নত নড়াচড়া ও ইন্টারনেট সংযোগ থাকবে। এর মাধ্যমে আরও দক্ষতার সঙ্গে ঘরের স্মার্ট ডিভাইসগুলো নিয়ন্ত্রণ করতে পারবে রোবটটি। নতুন এই রোবটটির নামও ‘আইবো’ রাখা হবে কিনা তা এখনই স্পষ্ট করে জানানো হয়নি প্রতিবেদেনে। এর আগে বাণিজ্যিকভাবে সাফল্য পায়নি আইবো। ২০০৬ সালে এই পণ্য বাতিল করেন সনি’র সাবেক প্রধান হাওয়ার্ড স্ট্রিংগার। বাণিজ্যিকভাবে সফল না হলেও এটিকে প্রতিষ্ঠানের একটি উল্লেখযোগ্য অধ্যায় হিসেবে দেখছে সনি। তাই এবার নতুন করে পণ্যটি বাজারে আনতে যাচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি। কয়েক বছর আগে এক এক্সপেরিয়া ক্যাম্পেইনে দেখা গেছে আইবো রোবট। সম্প্রতি প্রতিষ্ঠানের ৭০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতেও এই রোবটের কয়েকটি মডেল দেখা গেছে। এর আগে ‘আইবো’ রোবটের মূল্য ছিল ২৫০০ মার্কিন ডলার। নতুন রোবটের দাম কতো রাখা হবে তা এখনই ধারণা করা যাচ্ছে না।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ