ঢাকা, বৃহস্পতিবার 2 November 2017, ১৮ কার্তিক ১৪২8, ১২ সফর ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আলেমদের স্থাপিত নলকূপ শৌচাগারে স্টিকার লাগাচ্ছে এনজিও

নেত্রকোনা সংবাদদাতা: বাংলাদেশ খেলাফত যুব আন্দোলন কেন্দ্রীয় কমিটির ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ও নেত্রকোনা জেলার সভাপতি গাজী আব্দুর রহিম কক্সবাজারের উখিয়া বালুখালী, থাইংখালী, কুতুপালং শরণার্থী শিবির পরিদর্শন ও নির্যাতিত রোহিঙ্গা মাঝে ত্রাণ বিতরণ শেষ করে নেত্রকোনায় এসে গত সোমবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে বলেছেন, মায়ানমার সেনাবাহিনীর বর্বর পৈশাচিক নির্যাতনের শিকার হয়ে রোহিঙ্গা মুসলমানরা সর্বস্বান্ত হয়ে প্রধানমন্ত্রীর উদার সাহায্যের মাধ্যমে বাংলাদেশ সীমান্তবর্তী এলাকায় যখন আশ্রয় নিয়েছে, ঠিক তখনই সরলতার সুযোগে বিভিন্ন এনজিও সেবার নামে অত্যান্ত সুকৌশলে তারা ইসলামী তাহযীব-তামাদ্দুন ধ্বংস করার জন্য উঠে পড়ে লেগেছে। যা আমরা স্বচক্ষে দেখে এসেছি।
তিনি বলেন, আমরা যখন উখিয়া উপজেলার বালুখালী রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরে গেলাম, তখন স্থানীয় অনেকেই অভিযোগ করে বলেন, আলেম ওলামাদের স্থাপিত টিউবওয়েল, শৌচাগার ইত্যাদিতে এনজিও সংস্থাগুলো রাতের অন্ধকারে নিজেদের স্টিকার লাগিয়ে ফায়দা লুটার চেষ্টা করছে। অপরদিকে রোহিঙ্গা ছোট ছোট মাসুম শিশুদেরকে নাচ-গান শেখাচ্ছে।
যেখানে উলামায়ে কেরাম মসজিদ ও মাদরাসা নির্মাণ করছে ইসলামী আদর্শে শিশুদেরকে বেড়ে উঠার জন্য চেষ্টা করছেন, সেখানে তারা অপ-সংস্কৃতি চর্চার মাধ্যমে মুসলিম শিশুদেরকে ইসলামী মূল্যবোধ থেকে বিপথগামী করতে ব্যস্ত হয়ে পড়ছে। অত্যন্ত পরিতাপের বিষয়, যেই রোহিঙ্গারা মুসলমান হওয়ার কারণে নিজ দেশ থেকে বিতাড়িত তারাই আজ নব্বই ভাগ মুসলিম দেশে এসে এনজিওদের অপতৎপরতায় ইসলাম হারাতে বসেছে।
গাজী আব্দুর রহিম অবিলম্বে রোহিঙ্গা শরণার্থী ক্যাম্পে এনজিওগুলোর ইসলাম বিরোধী অপ-তৎপরতা বন্ধে কার্যকর পদক্ষেপ নেয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীর নিকট জোর দাবী জানান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ