ঢাকা, বৃহস্পতিবার 2 November 2017, ১৮ কার্তিক ১৪২8, ১২ সফর ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

নাটোরের উত্তরা গণভবনের গাছ কাটার ঘটনায় ঠিকাদারের বিরুদ্ধে মামলা

নাটোর সংবাদদাতা: অবশেষে নাটোরের উত্তরা গণভবনের শত বছরের ঐতিহ্যবাহী গাছ কাটার ঘটনায় ঠিকাদার সোহেল ফয়সালের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে জেলা প্রশাসন। শুক্রবার রাতে জেলা প্রশাসনের সহকারী নাজির মমতাজ আলী বাদী হয়ে ঠিকাদার সোহেল ফয়সালকে অভিযুক্ত করে নাটোর সদর থানায় মামলাটি দায়ের করেন। নাটোর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মশিউর রহমান মামলার এজাহার সূত্রে জানান, গণ ভবনের ভিতরের শত বছরের ঐতিহ্যবাহী গাছ কাটার ঘটনায় গণপুর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মশিউর রহমান ও গণপুর্তের বিভিন্ন কর্মকর্তা-কর্মচারীদের যোগসাজশে ঠিকাদার সোহেল ফয়সাল টেন্ডারের অতিরিক্ত ১০৯২ ঘনফুট কাঠ ও ১৪২ ঘনফুট গাছের ডালপালা কেটে নেয়। যা তদন্ত কমিটির তদন্ত প্রতিবেদনে সত্যতা পাওয়া যায়। তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনে সেই তথ্য পাওয়ার পর প্রতিবেদনটি উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের কাছে প্রেরণ করে জেলা প্রশাসন। পরে বৃহস্পতিবার গৃহায়ন ও গণপুর্ত মন্ত্রণালয় অভিযুক্ত ঠিকাদার সোহেল ফয়সালের বিরুদ্ধে মামলা করার জন্য নির্দেশনা প্রদান করেন। এর প্রেক্ষিতে গতরাতে জেলা প্রশাসনের সহকারী নাজির মমতাজ আলী বাদী হয়ে ঠিকাদার সোহেল ফয়সালকে অভিযুক্ত করে থানায় মামলাটি দায়ের করেন। মামলা দায়েরের পরই অভিযুক্ত সোহেল ফয়সালকে গ্রেফতারের জন্য অভিযান শুরু করেছে পুলিশ। উলে¬খ্য, নাটোরের উত্তরা গণভবনের ভিতরে সম্প্রতি ঝড়ে ভেঙ্গে পড়া এবং মরে যাওয়া দুটি আম, একটি মেহগনিসহ কিছু গাছের ডালপালা কাটার টেন্ডারের নামে লক্ষ লক্ষ টাকার শত বছরের ঐতিহ্যবাহী তাজা গাছ কাটার অভিযোগ পাওয়া যায় ঠিকাদারের বিরুদ্ধে। আর এই গাছ কাটার কাজে সহযোগিতা করেছেন গণপূর্ত বিভাগের কর্মকর্তা, গণভবনের তত্ত্বাবধায়ক, বনবিভাগ সহ বিভিন্ন সরকারী দপ্তরের অসাধু কর্মকর্তারা। এদিকে গণভবনের নিরাপত্তায় থাকা সিসি টিভি ক্যামেরায় ধরা পড়ে তাজা গাছ কেটে নেওয়ার দৃশ্য। মাত্র ১৮ হাজার ৪শ’ টাকার টেন্ডারের বিপরীতে কয়েক লক্ষ টাকার প্রায় ১৭টি শতবর্ষী গাছ এবং ৪৮টি গাছের ডালপালা কাটে সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ