ঢাকা, বৃহস্পতিবার 2 November 2017, ১৮ কার্তিক ১৪২8, ১২ সফর ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কে অচেতন করে লুটে নেওয়ার পূর্বেই শিমুলিয়া ঘাটে এসে ধরা খেলেন এক অজ্ঞান পার্টির সদস্য

লৌহজং (মুন্সীগঞ্জ) সংবাদদাতা : বেশ কিছুদিন যাবত ঢাকা-মাওয়া মহাসড়ককে অজ্ঞান পাটির তৎপরতা বৃদ্বি পেয়েছে। এতে করে এ রুটে চলাচলরত যাত্রীদের মাঝে আংতক ও শংকা ছরিয়ে পরেছে। পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে এদেরকে ধরার কোন উদ্দ্যেগ গ্রহণ করা না হলেও অবশেষে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পরে অচেতন হওয়ার পূর্বেই এক বাস যাত্রী শিমুলিয়া ঘাটের শ্রমিকদের সহযোগিতায় ধরে ফেললেন এক অজ্ঞান পার্টির সক্রিয় এক সদস্যকে। পুলিশ ও বাস শ্রমিকরা জানান মঙ্গলবার ৩১ অক্টোবর বিকেলে ঢাকার গুলিস্তান থেকে প্রচেষ্টা পরিবহনের একটি বাসে উঠেন মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখান উপজেলার কুচিয়ামোরার মৃত সাহাবুদ্দিন ব্যাপারির পুত্র ব্যবসায়ী তানভীর আহম্মেদ(২৫) বাসটি আব্দুল্লাহ পুরের কাছে আসলে অজ্ঞান পার্টির সক্রিয় সদস্য মো.মামুন (৪০) ব্যাবসায়ী তানভীরকে অচেতন করার জন্য টিসু পেপার নাকের সামনে নেয় এসময়ে তানভীরের কিছুটা ঞ্জান থাকায় সে বিষয়টি টের পেয়ে তাকে ঝাপটে ধরে বাস শ্রমিকদের সহযোগিতা চায় এ সময়ে বাসটি খুব দ্রুত শিমুলিয়া ঘাটে চলে আসে ।এ সময়ে অজ্ঞান পার্টির সক্রিয় সদস্য মো.মামুন দৈড়ে পালানোর চেষ্টা করলে পরিবহন শ্রমিকরা তাকে ধরে ফেলে পুলিশকে খবর দেয় । মাওয়া নৌ-পুলিশ ফাড়ির আইসি এসআই শরজিৎ কুমার ঘোষ জানান বাস শ্রমিকরা ও অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পরা ব্যক্তি ঐ অজ্ঞান পার্টির সদস্য মো.মামুনকে ধরে আমাদের খবর দেয় । আমরা রাতেই উভয়কে লৌহজং থানা পুলিশের কাছে তুলে দেই। তবে এ ব্যাপারে কোন মামলা হয়েছে কিনা আমি জানিনা সেটা থানা পুলিশ বলতে পারবে। অজ্ঞান পার্টির সদস্যর কাছে পাওয়া একটি ভোটার আইডি কার্ডের ফটোকপিতে মো.মামুনের ঠিকানা অনুযায়ী সে নারায়ণগঞ্জ সদরের এনায়েতনগরের ধর্মগঞ্জের পাকা পুল এলাকার আজিজ খানের পুত্র। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানাযায় অজ্ঞান পার্টির সদস্যরা সিন্ডিকেটের মাধ্যমে ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কে চলাচলরত যাত্রীদের জানমালের ক্ষতিকরে সর্বস্ব লুটে নিয়ে সটকে পরে। পরে বাস স্টাফরা শিমুলিয়া ঘাটে এনে অচেতন হয়ে পরা ব্যক্তিদের একটি দোকানের সামনে রেখে চলে যায়। পরে খবর পেয়ে মাওয়া নৌ-পুলিশ ফাড়ির সহযোগিতায় অচেতন ব্যক্তিদের তাদের পরিবারের নিকট ফিরিয়ে দেওয়া হয় । সূত্রটি আরো জানায় এ সিন্ডিকেটের সাথে শিমুলিয়া ঘাটের কয়েকজন জড়িত থাকতে পারে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ