ঢাকা, শনিবার 4 November 2017, ২০ কার্তিক ১৪২8, ১৪ সফর ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

আগৈলঝাড়ায় ভাসমান মাচায় সবজি চাষ করে স্বাবলম্বী শতাধিক পরিবার

এস এম শামীম, আগৈলঝাড়া (বরিশাল): বরিশালের আগৈলঝাড়ায় ভাসমান বেডে বা ধাপে সবজি ও মসলা চাষ করে শতাধিক পরিবার স্বাবলম্বী হচ্ছে। জলাবদ্ধ এলাকায় বেড বা ধাপে সবজির চাষ করে এলাকায় সবজির চাহিদা মিটিয়ে স্বল্প সময়ে এই প্রকল্পে আত্মকর্মসংস্থানের সুযোগ থাকায় এলাকার চাষীরা এই কাজে উৎসাহিত হয়েছে।
উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার বেশীরভাগ জমিতে পানি নিস্কাশনের সু-ব্যবস্থা না থাকায় বছরের ছয় মাস এ অঞ্চলের জমিতে পানি জমা থাকে। এলাকার দরিদ্র জনগোষ্ঠির জন্য এই জলাবদ্ধতা একটা অভিশাপ। কারণ, বছরে একবারই তারা জমিতে ফসল ফলাতে পারছেন। বাকি সময় পানি জমে থাকার কারণে জমি থাকে অনাবাদি। বদ্ধ পানিতে আগাছা ও কচুরীপানায় ভরে যায় জমি। এশটি প্রকল্পের আওতায় রাজিহার ইউনিয়নের বাশাইল গ্রামে ৪শত সমন্বয়ে একটি সমিতির মাধ্যমে তাদের প্রশিক্ষণ প্রদান, বিনা মূল্যে বীজ সরবরাহ, বেড তৈরীর খরচ ও বিভিন্ন কৃষি উপকরণ সহায়তা প্রদান করা হয়েছে। কয়েক বছর আগে থেকেই বাশাইল গ্রামের চাষিরা বেড বা ধাপে সবজি উৎপাদন করে আসছিলেন।
বিভিন্ন সহায়তা পাবার পরে তাদের সাথে অন্য এলাকার চাষিদেরও বেডে সবজি ও মসলা চাষে আগ্রহ বেড়েছে। বাশাইল গ্রামে ৫০ হেক্টর বেডে সবজি ও মসলা চাষ হচ্ছে। উপজেলার সাড়ে ৫শ হেক্টর বেড’এ সবজি ও মসলা চাষের লক্ষ্যমাত্রায় আনার কৌশল নির্ধারণ করা হচ্ছে। জমির বিকল্প হিসেবে মাঠের আগাছা ও খাল বিলের কচুরীপানা ব্যবহার করে বেড বা ধাপ বানিয়ে ফসল উৎপাদন করতে উপজেলার রাজিহার ইউনিয়নের গোয়াইল গ্রামের মিরাজ বিশ্বাস, সিরাজ, বেল¬াল হোসেন, তোফাজ্জেল হোসেন, খালেক সরদার, ছোট বাশাইল গ্রামের সামচু নিজস্ব প্রযুক্তিতে ধাপের উপর সবজি উৎপাদন শুরু করেন। প্রথম পর্যায়ে তাদের এই কাজকে অনেকেই ভাল চোখে না দেখলেও পরে স্বল্প সময়ে, স্বল্প ব্যয়ে অধিক মুনাফা অর্জনের কারণে এলাকার অনেকেই এখন ধাপের উপর সবজি চাষ করছেন। বাশাইল গ্রামের চাষি তোফাজ্জেল হোসেন ও খালেক সরদার জানান, তাদের বাবাও বেডে সবজি, সবজির চারা তৈরি করে তা বিক্রি করেছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ