ঢাকা, রোববার 5 November 2017, ২১ কার্তিক ১৪২8, ১৫ সফর ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

পেট্রাপোল ইমিগ্রেশনে পাসপোর্ট যাত্রীদের ওপর বিধিনিষেধ আরোপ ॥ বিপাকে ভ্রমণকারীরা

খুলনা অফিস : ভারতের পেট্রাপোল ইমিগ্রেশন পাসপোর্ট যাত্রীদের যাতায়াতের ওপর বিধিনিষেধ আরোপ করায় চরম বিপাকে পড়েছেন দু’দেশের ভ্রমণকারীরা। আর এই বিধিনিষেধের কারণে যাত্রীরা তাদের প্রয়োজনীয় কাজ মিটাতে পারবে না বলে অভিযোগ করেছেন। ভারত থেকে দেশে ফিরে অনেক যাত্রীই এ অভিযোগ করেন। বাংলাদেশী ও ভারতীয় একাধিক পাসপোর্ট যাত্রী বলেছেন সে দেশে কোন সরকারি প্রজ্ঞাপন জারী হয়নি। অথচ অতিরিক্ত পাসপোর্ট যাত্রীর ভীড়ের অজুহাত দেখিয়ে ভারতীয় ইমিগ্রেশন কর্মকর্তারা পাসপোর্ট যাত্রীদের ফেরত পাঠাচ্ছেন।

ভারতীয় মাল্টিপল ভিসার একজন পাসপোর্টযাত্রী নূরুল আমিন বাংলাদেশে এসে বলেন, তাদের ইমিগ্রেশন পুলিশ বলেছেন সপ্তাহে মাত্র একবার বাংলাদেশে যেতে পারবেন। এর বেশী বাংলাদেশে প্রবেশ করতে পারবেন না। আর যাদের মাল্টিপল ট্যুরিস্ট ভিসা আছে তারা মাসে দুইবার প্রবেশ করতে পারবেন, কিন্তু ওই পাসপোর্ট যাত্রীকে এক সপ্তাহ ভারতে অবস্থান করতে হবে। ঠিক একই অভিযোগ করেছেন বাংলাদেশের একাধিক পাসপোর্টযাত্রী। তারা বলছেন আমাদেও প্রয়োজনীয় ব্যবসায়িক কাজ ডাক্তার দেখানো আত্মীয় বাড়ি যাওয়াসহ জরুরী কাজ থাকলেও ভারতের ইমিগ্রেশন পুলিশ পাসপোর্টে রিফিউজ সীল মেরে ফেরত পাঠাচ্ছে। ঢাকার পাসপোর্ট যাত্রী আমিনুর রহমান। তার পাসপোর্ট নম্বর বিপি ০০২৮২৯০। তিনি শুক্রবার সকালে পরিবারের ৫ সদস্যসহ ভারতের ইমিগ্রেশনে যান। পেট্রাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশ তাদের পাসপোর্টে রিফিউজ সিল মেরে বাংলাদেশে ফেরত পাঠায়। আমিনুর রহমান বলেন তাদের একজন বাদে অন্য চারজনের বিজনেস ভিসা আছে। সমস্ত কাজকর্ম শেষ করে ভারতে যাওয়ার পর সেখানকার ইমিগ্রেশন কর্মকর্তা বলেন বিজনেস ভিসায় সপ্তাহে মাত্র দুই দিন আসা যাবে। এর বেশী আসা যাবে না। যেহেতু আপনি গত দুইদিন আগে এসেছেন সেক্ষেত্রে আপনি আজ ভারতে যেতে পারবেন না। আমিনুর রহমানের সঙ্গীরা হলেন ফিরোজা বেগম(বিপি ০৩১৮৬২৬), রফিকুল ইসলাম (বিএন ০৩৪৯৯১২), লিয়াকত হোসেন (বিপি ০৩৪৯০৬১) ও হযরত আলী (বিজে ০৩৮৬৪৫২)। এছাড়া বেনাপোল গ্রিন লাইন পরিবহনের গাইড রফিকুল ইসলাম তুহিন (বিএন ০৩৪৯৯১২) সকালে ট্যুরিস্ট ভিসায় ভারত গেলে একই কারণ দেখিয়ে তাকেও এন্ট্রি রিফিউজ সিল মেরে বাংলাদেশে ফেরৎ পাঠায় আর বলে এক মাস বাদে আসতে।

যশোরের শার্শার কুলপালা গ্রামের আব্দুল হান্নানের ছেলে শহিদুল ইসলাম (বিপি-০২৭৬১৮৩) গত মাসের ২ অক্টোবর বিকেলে ভারতে গেলে পেট্রাপোল ইমিগ্রেশন কর্মকর্তা তার পাসপোর্টে এন্ট্রি রিফিউজ সিল মেরে বলে এক মাস পর আসতে। সেই অনুযায়ী সে ২ নবেম্বর বৃহস্পতিবার ভারতে গেলে পেট্রাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশ তার পাসপোর্টে আবারও রিফিউজ সিল মেরে বলে বাংলাদেশে ফেরৎ যান এক মাস পরে আসেন। কি কারণে তাকে ফেরত যেতে বলা হচ্ছে শহিদুল জানতে চাইলে কর্মকর্তা বলেন কোন প্রশ্ন নয়।

এ ব্যাপারে বেনাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশন পুলিশের অফিসার ইনচার্জ ওসি ওমর শরীফ বলেন, এ রকম লিখিত অভিযোগ কেউ করেনি। ভারতের পেট্রাপোল ইমিগ্রেশন এটা করছে শুনেছি। তবে কি জন্য করছে তা বলতে পারব না। এ ব্যাপারে দুই দেশের হাইকমিশনার পর্যায়ে সমাধান করা উচিৎ। তবুও আমি ওপরে জানাব।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ