ঢাকা, সোমবার 6 November 2017, ২২ কার্তিক ১৪২8, ১৬ সফর ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

চীনের প্রতি বিনিয়োগের আহ্বান এফবিসিসিআই’র

স্টাফ রিপোর্টার : বাংলাদেশে অবকাঠামো, যন্ত্রপাতি, হালকা প্রকৌশল, ইলেক্ট্রনিক্স এবং বস্ত্র খাতে বিনিয়োগ করতে চীনের ব্যবসায়ীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার্স অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির (এফবিসিসিআই) সভাপতি শফিউল ইসলাম (মহিউদ্দিন)।
গতকাল রোববার রাজধানীর এফবিসিসিআই ভবনে চীনের ঝিলিন প্রদেশের বাণিজ্য প্রতিনিধিদলের সঙ্গে এফবিসিসিআই’র নেতাদের আলোচনা সভায় এ আহ্বান জানান তিনি।
চীনের ২১ সদস্যের বাণিজ্য প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দেন ঝিলিন প্রদেশের বাণিজ্য বিভাগের উপ-পরিচালক সান গুওহুয়া। সভায় উপস্থিত ছিলেন এফবিসিসিআই’র প্রথম সহ-সভাপতি শেখ ফজলে ফাহিম, সহ-সভাপতি মোঃ মুনতাকিম আশরাফসহ এফবিসিসিআইর পরিচালকবৃন্দ।
শফিউল ইসলাম (মহিউদ্দিন) চীনা প্রতিনিধিদলকে দেশের বর্তমান অর্থনৈতিক পরিস্থিতি সম্পর্কে অবহিত করেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশের অর্থনীতি দ্রত বর্ধনশীল এবং আর্থ-সামাজিক বিভিন্ন সূচকে অত্যন্ত ইতিবাচক অগ্রগতি ঘটছে। বাংলাদেশ আসিয়ান এবং দক্ষিণ-এশীয় দেশগুলোর প্রবেশদ্বার। চীন ভৌগোলিকভাবে দক্ষিণ এশিয়ার বিভিন্ন অংশকে যুক্ত করছে, তাই বাংলাদেশ এবং চীন যৌথভাবে এ ভৌগলিক অবস্থানের অপার সম্ভাবনা কাজে লাগাতে পারে।
তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশ কয়েক বছর ধরেই ধারাবাহিকভাবে ৬ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জন করে আসছে এবং গত দুই বছরে ৭ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে। সরকারের দেওয়া আকর্ষণীয় বিনিয়োগ সুবিধা কাজে লাগিয়ে চীন বাংলাদেশের বিভিন্ন খাতে বিনিয়োগ করতে পারে।
চীনের ঝিলিন প্রদেশের উপ-পরিচালক সান গুওহুয়া বলেন, চীন এবং বাংলাদেশের মধ্যে সাম্প্রতিক বছরগুলোতে অর্থনৈতিক সহযোগিতা ও বাণিজ্য অনেক গুণ বৃদ্ধি পেয়েছে।
এ সময় তিনি ঝিলিনের কৃষি এবং শিল্প খাতের অপার সম্ভাবনার কথা তুলে ধরে বাংলাদেশি ব্যবসায়ীদের তার প্রদেশে কৃষি, গাড়ি নির্মাণ এবং ইলেক্ট্রনিক্স ইত্যাদি খাতে বিনিয়োগের আহ্বান জানান।
উল্লেখ্য, ২০১৬-১৭ অর্থবছরে বাংলাদেশ ৯৪৯ দশমিক ৪১ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের পণ্য চীনে রপ্তানি করে এবং চীন থেকে ১০১২৮ দশমিক ১ মিলিয়ন ডলারের পণ্য আমদানি করে। চীনে রপ্তানি করা বাংলাদেশি পণ্যগুলো হচ্ছে- উভেন গার্মেন্টস, চামড়াজাত পণ্য, নিটওয়্যার, পাট ও পাটজাত পণ্য, চামড়া, ফ্রোজেন ফুড এবং প্লাস্টিক সামগ্রী। চীন থেকে মুলত টেক্সটাইল এবং টেক্সটাইল সামগ্রী, যন্ত্রপাতি ও ইলেক্ট্রনিকস সামগ্রী আমদানি করা হয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ