ঢাকা, সোমবার 6 November 2017, ২২ কার্তিক ১৪২8, ১৬ সফর ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

গাজীপুরে পোশাক শ্রমিককে নৌকায় তুলে নিয়ে গণধর্ষণ গ্রেফতার ৪

গাজীপুর সংবাদদাতা : গাজীপুরে বাড়ি ফেরার পথে এক পোশাক শ্রমিককে তুলে বিলে নিয়ে নৌকায় গণধর্ষণ করেছে কয়েক যুবক। এঘটনায় ৪ যুবককে গ্রেফতার করেছে জয়দেবপুর থানার পুলিশ। গ্রেফতারকৃতরা হচ্ছে- গোপালগঞ্জের মধুপুর এলাকার আহম্মদ আলী মোল্লার ছেলে মনির হোসেন (৩৪), টাঙ্গাইল সদরের কেশমমাইজার গ্রামের আঃ হালিমের ছেলে কাওসার আলী (২০, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের ইটাহাটা এলাকার মৃত আব্দুস সামাদের ছেলে আরব আলী (৩২) ও কুড়িগ্রামের ভুড়িঙ্গামারি থানার বড়তেরছড়া গ্রামের আব্দুল হামিদের ছেলে মোফাজ্জল হোসেন (৩০)।
জয়দেবপুর থানার কোনাবাড়ি পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ইন্সপেক্টর মোবারক হোসেন জানান, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের মৌচাক তেলিরচালা এলাকায় স্বামীর সঙ্গে ভাড়া বাসায় থেকে স্থানীয় একটি পোশাক কারখানায় চাকরি করতো এক নারী (ভিকটিম)। সম্প্রতি তার চাকরি চলে যায়। ভ্যান চালক স্বামী অসুস্থ্য হওয়ায় গত বৃহস্পতিবার সকালে নতুন চাকরির খোঁজে তিনি চান্দনা চৌরাস্তা এলাকায় বোনের বাড়িতে আসেন। কাজ শেষে রাতে অটো রিকশাযোগে বাড়ি ফিরছিলেন। পথে রাত ১০টার দিকে তিনি ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের বাইমাইল এলাকায় পৌঁছালে চার যুবক ওই নারীকে জোরপূর্বক রিকশা থেকে নামিয়ে মারধর করে। একপর্যায়ে তাকে একটি নৌকায় তুলে ওই এলাকায় বিলের মধ্যে নিয়ে চারজন মিলে ধর্ষণ করে। গত গত শুক্রবার ভোরে ধর্ষকরা ভিকটিমকে ছেড়ে দেয়। ভিকটিম বাড়ি ফিরে তার স্বামীকে ঘটনাটি জানায়। স্বামীর পরামর্শে ভিকটিম গত শনিবার কোনাবাড়ি পুলিশ ফাঁড়িতে গিয়ে একটি অভিযোগ দায়ের করেন। ওই অভিযোগের প্রেক্ষিতে পুলিশ গত শনিবার রাতে ঘটনাস্থলের আশেপাশে এলাকায় অভিযান চালিয়ে প্রথমে মনির হোসেন ও কাওসার আলীকে আটক করে। পরে তাদের স্বীকারোক্তিতে গতকাল  রোববার সকালে পুলিশ কোনাবাড়ি এলাকা থেকে মোফাজ্জল হোসেন ও আরব আলীকে আটক করা হয়।
ইন্সপেক্টর মোবারক হোসেন আরো জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃতরা ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছে। ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য ভিকটিমকে গাজীপুরের শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ