ঢাকা, সোমবার 6 November 2017, ২২ কার্তিক ১৪২8, ১৬ সফর ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

মাধবদীতে ঝুঁকিপূর্ণ ব্রিজের ওপর দিয়ে যান চলাচল ॥ দুর্ঘটনা ঘটেই চলেছে প্রতিদিন

মাধবদী (নরসিংদী) সংবাদদাতা : মাধবদীর সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ যোগাযোগের রাস্তা বাসস্ট্যান্ড থেকে কলেজে, বাজারে এবং বাজার থেকে পৌরসভায় প্রবেশের মূল যোগাযোগ স্থল হচ্ছে ব্রহ্মপূত্র নদের ওপর একটি অপ্রশস্ত ছোট ব্রিজে যার দু’পাশের রিলিং ভেঙ্গে প্রায় দু’বছর পূর্বেই চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। সাপ্তাহে কয়েকবার পণ্যবাহী ও যাত্রীবাহী গাড়ি, রিকশা, ভ্যান এবং পথচারী সাধারণ মানুষ ব্রিজ পার হতে দুর্ঘটনায় পতিত হলেও এটির মেরামত বা পুনঃনির্মাণ করার কোন উদ্যোগ লক্ষ্য করা যাচ্ছেনা। মাধবদীতে পৌরসভা স্থাপিত হবার পর পৌর প্রশসক ও নির্বাচিত প্রত্যেক মেয়রই ব্রহ্মপূত্র নদ খননের চেষ্টা করেছেন কিন্তু দখলদারদের কারণে তা খনন হয়নি আজও। এ বহ্মপূত্র খনন ও চলাচল অযোগ্য এ ব্রিজটি পুনঃনির্মাণের ঘোষণা দিয়েছেন প্রত্যক মেয়রই। প্রায় ৬ মাস পূর্বে বর্তমান মেয়র হাজী মোঃ মোশাররফ হোসেন প্রধান মানিকও এটি পুনঃনির্মাণ এবং বাসস্ট্যান্ড থেকে আনন্দী চৌরাস্তা মোড় পর্যন্ত খানাখন্দে ভরা রাস্তাটি মেরামতের জন্য কাজ শুরু করেছিলেন। ব্রহ্মপূত্র দখলদার ও রাস্তা দখল করীরা ষড়যন্ত্র করে হাইকোর্টে মামলা করে স্থগিতাদেশ করায় বর্তমানে কাজ বন্ধ রয়েছে বলে ব্রিজের পশ্চিম পাশে সাইনবোর্ড ঝুলানো হয়েছে। ফলে অপ্রশস্ত এ ব্রিজ দিয়ে প্রতিদিন শত শত পণ্যবাহী ও যাত্রীবাহী গাড়ি মারাত্মক ঝুঁকি নিয়ে পারাপার হতে গিয়ে দুর্ঘটনা ঘটাচ্ছে। বিশেষ করে রিলিংহীন এ সেতুর ওপর দিয়ে চলচলের সময় একটি গাড়ি পার হতে গেলেই গাড়ির নীচে চাপা পড়া থেকে বাঁচতে ব্রহ্মপূত্রের ময়লায় পড়ে যায় অনন্নোপায় পথচারী। আর রিকশা বা ছোট গাড়িতো দুর্ঘটনায় পড়ছে প্রায়ই। ফলে যানজট এখানকার প্রতিদিনের দৃশ্য প্রতিয়মান। মাধবদী পৌর কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করলে মেয়র বলেন শত বাধা উপেক্ষা করেও জনস্বার্থে তিনি ব্রিজ এবং ব্রহ্মপূত্র খনন করার সর্বময় চেষ্টা অব্যাহত রাখবেন। ব্রহ্মপূত্র নদ খনন, নড়বড়ে ব্রিজ আরো প্রশস্ত করে নির্মাণ করা এখন স্থানীয় অধিবাসীদের গুরুত্বপূর্ণ দাবি হয়ে দাড়িয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ