ঢাকা, মঙ্গলবার 7 November 2017, ২৩ কার্তিক ১৪২8, ১৭ সফর ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

সাবেক সংসদ সদস্য সুলতানা রাজিয়ার ইন্তিকাল

জাতীয় সংসদের সাবেক সদস্য, জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় মজলিসে শূরার সদস্যা সুলতানা রাজিয়া গতকাল সোমবার সকাল ৯টায় রাজধানীর কদমতলির নিজ বাসভবনে বার্ধক্যজনিত কারণে ইন্তিকাল করেছেন। ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্নাইলাহি রাজিউন। তার বয়স হয়েছিল ৮৫ বছর। তিনি ৩ ছেলে ও ২ মেয়েসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।
মরহুমা রাজিয়া ১৯৯১ সালে জাতীয় সংসদে সংরক্ষিত মহিলা আসনে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন এবং ১৯৯৬ সাল পর্যন্ত সফলতার সাথে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় কমিটিতে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেছেন। সর্বশেষ তিনি জামায়াতে ইসলামীর মহিলা বিভাগের সহকারী সেক্রেটারি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।
ভারপ্রাপ্ত আমীরের শোক: জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় মজলিসে শূরার সদস্যা সুলতানা রাজিয়ার ইন্তিকালে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন জামায়াতে ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত আমীর ও সাবেক এমপি অধ্যাপক মুজিবুর রহমান শোকবাণী দিয়েছেন। 
শোকবাণীতে তিনি বলেন, মরহুমা আজীবন ইসলামী আন্দোলনে শরীক থেকে দ্বীন প্রতিষ্ঠার জন্য গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে গিয়েছেন। তিনি অসংখ্য স্কুল ও মাদ্রাসাসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং সেবামূলক নানা কর্মকাণ্ডে জড়িত ছিলেন। তিনি ধর্মভীরু নারীদের ইসলামের পক্ষে কাজ করার জন্য সদা-সর্বদা সাহস ও অনুপ্রেরণা দিতেন।
তিনি বলেন, মহান আল্লাহ যেন তাঁর জীবনের সকল নেক আমল কবুল করে তাকে জান্নাতবাসী করেন এবং পরিবার-পরিজন ও আত্মীয়-স্বজনকে সবর করার তাওফিক দান করুন।
ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের শোক: সুলতানা রাজিয়া’র মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন জামায়াতে ইসলামী ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের আমীর (ভারপ্রাপ্ত) ও কেন্দ্রীয় মজলিশে শুরা সদস্য এডভোকেট ড. হেলাল উদ্দিন।
গতকাল দেয়া শোক বিবৃতিতে ড. হেলাল নারী সমাজের উন্নয়ন, কল্যাণ ও জাগরণে মরহুমা রাজিয়ার অসামান্য অবদানের কথা স্মরণ করেন।
তিনি বলেন, তার মৃত্যুতে জাতি এক ধর্ম-সচেতন ও সুস্থ নারী জাগরণের পথিকৃৎ কে হারালো। শোক বার্তায় ড. হেলাল মরহুমার রুহের মাগফেরাত কামনা করেন ও শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জানান। তিনি বলেন, আল্লাহ যেন তাঁর নেক আমল সমূহ কবুল করে তাকে জান্নাতবাসী করেন এবং পরিবার ও আত্মীয় স্বজনকে সবর করার তৌফিক দান করেন। তিনি বলেন, মরহুমা সুলতানা রাজিয়া বাংলাদেশের স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব রক্ষা ও ইসলামী মূল্যবোধে জাগ্রত নারীদের কল্যাণে নিরলসভাবে কাজ করে গেছেন তিনি অসংখ্য স্কুল, কলেজ প্রতিষ্ঠাসহ সমাজের সেবামূলক বিভিন্ন কর্মকান্ডে যুক্ত ছিলেন। তিনি ধর্মভীরু নারীদের সর্বদা সাহস ও প্রেরণার উৎস হয়েছিলেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ