ঢাকা, সোমবার 13 November 2017, ২৯ কার্তিক ১৪২8, ২৩ সফর ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

কাশ্মীরের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা  করেছে ভারত-------------ফারুক আব্দুল্লাহ

কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ফারুক আবদুল্লাহ

১২ নবেম্বর, ওয়ান ইন্ডিয়া : ভারত বিশ্বাসঘাতক, বললেন জুম্মু-কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ফারুক আবদুল্লাহ। তবে স্বাধীন কাশ্মীরের বিরোধিতাও করেছেন তিনি।

এর আগে স্বাধীন কাশ্মীরের বিরোধিতা করেছিলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শাহিদ খোকন আব্বাসি।

কাশ্মীরের তিন দিকে রয়েছে তিন পরমাণু শক্তিধর দেশ, চীন-পাকিস্তান ও ভারত। তাই স্বাধীন কাশ্মীরের দাবি ভুল। এমনটাই মন্তব্য করলেন ন্যাশনাল কনফারেন্সের নেতা ফারুক আবদুল্লাহ। একইসঙ্গে তিনি বলেন, পাকিস্তানের অধীনে থাকা আজাদ কাশ্মীরও পাকিস্তানেরই অংশ।

স্বাধীন কাশ্মীরের দাবি বাতিল করে দেওয়ার পর, জম্মু ও কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ফারুক আবদুল্লাহর স্বাধীন কাশ্মীর নিয়ে মন্তব্য যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ।

ফারুক আবদুল্লাহ বলেন, এখানে স্বাধীন কাশ্মীর কোনও ইস্যুই নয়। কেননা কাশ্মীর একটা দ্বীপের মতো। একদিকে চীন, একদিকে পাকিস্তান এবং অন্য একদিকে রয়েছে ভারত।

তিন দেশের হাতেই রয়েছে পরমাণু বোমা। আল্লাহর নাম করা ছাডা, তাদের আর কিছুই করার নেই বলে মন্তব্য করেন ফারুক।

 যে সব বিচ্ছিন্নতাবাদী কাশ্মীরের স্বাধীনতার কথা বলছেন, তারা ভুল বলছেন বলেও মন্তব্য করেছেন শ্রীনগরের এই সাংসদ। স্বায়ত্তশাসনের দাবি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, মনে ভালবাসার নিয়েই জুম্মু-কাশ্মীর ভারতে রাষ্ট্রে যোগ দিয়েছিল, কিন্তু ভারত রাষ্ট্র কাশ্মীরের মানুষের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করেছে।

ফারুক বলেন, সিদ্ধান্তের ভিত্তিতে ভারতে যোগ দিয়েছিল কাশ্মীর। কিন্তু ভারত কাশ্মীরবাসীর সঙ্গে ভাল ব্যবহার করেনি। মানুষের ভালবাসার মর্যাদাও দেয়নি।

কাশ্মীরবাসীর সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করা হয়েছে বলেও অভিযোগ করেছেন জম্মু ও কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী। আর এসব কারণই কাশ্মীরের বর্তমান পরিস্থিতির জন্য দায়ী বলে জানিয়েছেন তিনি।

আভ্যন্তরীণ স্বায়ত্তশাসন তাদের অধিকার। ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারকে তাদেরকে সেই স্বায়ত্বশাসন ফিরিয়ে দিতে হবে। ঠিক তখনই কাশ্মীর উপত্যকায় শান্তি ফিরে আসবে বলে মন্তব্য করেছেন ফারুক আবদুল্লাহ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ