ঢাকা, রোববার 19 November 2017, ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২8, ২৯ সফর ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

ছড়া/কবিতা

গাঁয়ের পাশে নদী
শরীফ সাথী

আমার গাঁয়ের পাশে ঘেঁষে
বয়ে যাওয়া নদী,
তাঁর জমানো সুখের কথা
বলছি নিরবধি।

জলের ঢেউয়ে পদ্ম ফুলে
দুলে চলে বুকে,
মাঝির ভেলা মাছের খেলা
নিত্য রঙিন সুখে।

সবুজ ঘাসের মাঝামাঝি
শিশির কণা মেখে
ফড়িং দলের নাচানাচি
এমন দৃশ্য দেখে।

চলে নদী আপন মনে
দু’ধারে তীর রেখে
সবুজ বনের মায়া ছবি
তাঁর নয়নে এঁকে।


নবান্নের উৎসব
সৈয়দ মাশহুদুল হক

শিউলি কেয়া আর ফোটে নাই
শাপলা শালুক আর মোটে নাই
মাঠে মাঠে সোনালী ধান
শিষ দুলিয়ে ভাসে
কাস্তে হাতে কৃষাণে আজ
ধান কাটে আর হাসে।

কৃষাণ বধূ ধান ভানে আর-
পান চিবিয়ে খায়
মনের সুখে মাঝিরাও
ভাটিয়ালি গান গায়,
সবার মুখে খুশির ঝিলিক
আজ যেন চমকায়।

গাঁও-গেরামে এলো ফিরে
নবান্নের উৎসব
পিঠা পুলি বানিয়ে খাবে
গাঁয়ের মানুষ সব,
বনের পাখি মনের সুখে
ডাকছে কলরবে।

কারো ঘরে অভাব নাই যে
ধানে ভরা গোলা
বউ বুবুরা ধান ঝাড়ে রোজ
নেড়ে বাঁশের কুলা,
মুখের হাসি আজ সকলের
একেবারে প্রাণখোলা।


বাবুই পাখির নীড়
মো.আসাদউজ্জামান খান

হোগল পাতা মুখে করে
চঞ্চু দিয়ে নীড় বানায়
মৃদু বাতাস ধাক্কা পেলে
দুলে দুলে দোল যে খায়
খুব মজা পায় বাবুই তখন
দুলতে পেরে নিজের ঘরে।

মনের সুখে নেচে ওঠে
নাচের সাথে গান ধরে!
রাতের বেলা ধরে জোনাক
 যতœ করে রাখে
জোনাই জ্বলে মিটিমিটি
বাবুই বেশ সুখে থাকে।


বাজার গরম
ইকবাল কবীর মোহন

বাজার দরে চান্দি গরম
স্বস্তি মনে নাই
ভয়ে ভয়ে তাইতো আমি
হাট-বাজারে যাই।

শাকের গায়ে হাত লাগিলে
বুকে ধরে জ্বালা
দামটা শুনে ঝিঙে পটল
কানে লাগে তালা।

চালের দামে পিষ্ঠ মানুষ
হচ্ছে ডালে তুষ
মসলা পাতির দাম শুনিলে
হারায় ক্রেতা হুঁশ।

সিন্ডিকেটের কারসাজিতে
জিনিসের দাম বাড়ে
কোটি লোকের নিন্দা যত
প্রশাসনের ঘাড়ে।


নৃশংসতা
জাকির আজাদ

মোবাইল চুরির মিথ্যা দোষে
হায় কিশোরী পুড়িয়ে,
মানুষ বেশে কিছু দানব
নিলো আক্রোশ জুড়িয়ে।

কি যে নির্দয় কা- ঘটছে
সভ্যতাকে উড়িয়ে,
দেশটা বুঝি যাচ্ছে ঢেকে
বরর্বতায়  মুড়িয়ে।

এই নিষ্ঠুরতা রুখতে হবে
এই প্রেক্ষাপট ঘুরিয়ে,
আইনের তর্ক আইনে থাকুক
চলছে, চলুক খুঁড়িয়ে।

সচেতন হোক সবাই এবার
যায়নি সময় ফুরিয়ে,
এমন হিংস্র সব পশুর হাত
দিতে হবে গুঁড়িয়ে।


আগুন
মো: খলিলুর রহমান

পেঁয়াজের ঝাঁজ বড়
বাজারটা আগুন
আলু পটল তরকারীর
দাম হলো দ্বিগুন।

জিরা, আদা রসুনের
দেহটা বেশ গরম
ক্ষীরা শশা টমেটোর
বাজারটা চরম।

কাঁচা কাঁচা ঝাল গুলি
কেজি দুশো টাকা
বাজার দরের অস্থিরে
পকেট হলো ফাঁকা।

ও দিকে গিন্নিটার যে
শখ হলো বড়
কসমেটিক সোনা দানা
করবে কিনে জড়।

ও বাবা উপায় আছে
ওটাও বেড়ে ক’গুন
দুর্মূল্যের বাজারেতে
বউ রেগে আগুন।


খুশির ধুম
হামীম রায়হান

জারুল গাছে হলুদ পাখি
ভর দুপুরে ডাকে,
ইচ্ছে করে বিছান ফেলে
যাই নদীটির বাঁকে।

মেঘের সাথে র্সূয মামা
খেলছে লুকোচুরি,
এসব দেখে হাসছে বসে
চাঁদের দেশের বুড়ি।

এমন দুপুর বেলা যখন
সবাই থাকে ঘরে,
সুযোগ পেলে যাবো আমি
ঐ আকাশের পরে।

ডুব সাঁতারে পৌঁছে যাবো
নীল পরীদের দেশে,
থাকবো আমি তাদের সাথে
রাজকুমারের বেশে।

নেই সেখানে পড়ার জ্বালা,
দুপুর বেলা ঘুম,
নানান খেলায় থাকবো মেতে
পড়বে খুশির ধুম।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ