ঢাকা, রোববার 19 November 2017, ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২8, ২৯ সফর ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

প্রতিবন্ধী ৪ ছেলেমেয়ে নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন

বাঁশখালীর বাহারছড়ার বিধবা নূর আয়েশা বেগমের সংসার, যেখানে চার ছেলে মেয়ে প্রতিবন্ধী

মো. আব্দুল জব্বার: বাঁশখালীর বাহারছড়া ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের চাপাছড়ি গ্রাম। যেখানে বিধবা নুর আয়েশার বসতি। সংসারে ৪ ছেলে মেয়ে থাকলেও তারা সকলেই প্রতিবন্ধী। তবে প্রতিবন্ধী ২ ছেলে ইতিমধ্যে বিয়ে করে তাদের সংসারে এক ছেলে জন্মগ্রহণ করলেও সংসারের সকল হাল ধরতে হয় নুর আয়েশাকে। স্বামী আবদুল আলিম বিগত বেশ কিছুদিন আগে মৃত্যুবরণ করেন। নুর আয়েশা বেগম জানান তার ঘরের প্রথম সন্তান মোঃ বেলাল (৩৫), কাউছারা বেগম (২৫), জিয়াউল হক (২২), আরাফাত (১৭) জন্মগ্রহণ করলেও জন্ম থেকে তারা অন্ধ এবং প্রতিবন্ধী। এই প্রতিবন্ধী ছেলে মেয়ে নিয়ে তাদের সংসারে অভাব অনটনের কমতি নেই। কিন্তু সরকারি এবং অন্যান্য দাতা সংস্থা গুলোর যে সুযোগ সুবিধা পাওয়ার কথা যথাযথ যোগাযোগের অভাবে তা থেকেও বঞ্চিত তারা। ফলে অন্ধ এই চার ছেলে মেয়ে নিয়ে সংসারে সকল ঘানি টানতে হয় বিধবা নুর আয়েশা বেগমকে। তার বড় ছেলে মোঃ বেলাল জানান, অন্ধ এবং প্রতিবন্ধী হওয়ায় তারা বিভিন্ন স্থানে যেতে না পারায় এলাকায় নানা ধরনের যে সুযোগ সুবিধা রয়েছে তা থেকে অনেকটা বঞ্চিত তারা। সম্প্রতি হ্যাবিট্যাট ফর হিউম্যানিটি বাংলাদেশের সহযোগিতায় সমাজ উন্নয়ন সংস্থার ইপসার ঘূর্ণিঝড় মোরায় ক্ষতিগ্রস্তদের গৃহনির্মাণ ও পুনর্বাসন কার্যক্রমের আওতায় জরিপকালে তাদের সন্ধান পায় প্রতিনিধি দল। তারা বলেন, প্রতিবন্ধী হয়ে জন্মগ্রহণ করে মানবিক সকল সুযোগ সুবিধা থেকে বঞ্চিত তারা। যদি কোন হৃদয়বান ব্যক্তি তাদের দিকে ফিরে তাকায় তাহলে কোন রকমে জীবনের সময়টুকু পার করা যাবে। এ ব্যাপারে নুর আয়েশা বেগম বলেন এক সময় পরিবারের কর্তা থাকলেও কোন রকমে সংসার চালানো সহজ ছিল। ছেলেরা যখন কোথাও ভিক্ষা কিংবা কারো কাছ থেকে সহযোগিতা পায় তাহলে কোন রকমে চলা যায়। না হয় তাদের নানাবিধ সমস্যার সাথে দিন যাপন করতে হয়। এমনকি অনেক সময় দুই বেলা নিয়মিত খাওয়া সম্ভব হয় না। এ ব্যাপারে বাহারছড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান অধ্যাপক তাজুল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, প্রতিবন্ধী এ পরিবারটি অসহায়। আমি নির্বাচিত হওয়ার পর সরকারি ও পরিষদের মাধ্যমে যে সব সুযোগ সুবিধা পাওয়া সম্ভব হবে তা আমি তাদের যথাযথ ভাবে দেওয়ার চেষ্টা করছি। তবে এই পরিবারটিকে যারা সহযোগিতা করেন তাদের জন্য মঙ্গল হবে বলে তিনি দাবী করেন। বাঁশখালীর বাহারছড়া চাপাছড়ি গ্রামের অসহায় নুর আয়েশা এখন শুধুমাত্র প্রতিবন্ধী ৪ ছেলে মেয়েকে নিয়ে বেঁচে থাকতে সকলের কাছে মানবিক সহযোগিতা কামনা করেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ