ঢাকা, বৃহস্পতিবার 23 November 2017, ৯ অগ্রহায়ণ ১৪২8, ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

পাবনার ভাঙ্গুড়ায় বৃষ্টিতে কাঁচা ইটের ব্যাপক ক্ষতি ॥ ভাটা মালিকরা হতাশ

ভাঙ্গুড়া (পাবনা) : বৃষ্টিতে নষ্ট হয়ে যাওয়া কাঁচা ইটের স্তূপ

ভাঙ্গুড়া (পাবনা) সংবাদদাতা: গত কয়েক দিনের মাঝারি বর্ষণে পাবনার ভাঙ্গুড়া উপজেলার ৭ টি ইট ভাটার কাঁচা ইটের ব্যাপক ক্ষতি সাধিত হয়েছে। এ ক্ষতির পরিমাণ প্রায় অর্ধ কোটি টাকা বলে ধারণা করা হচ্ছে।
জানা গেছে, গত বুধবার ভোর থেকেই এখানে থেমে থেমে হালকা বৃষ্টি শুরু হয়। বৃহস্পতিবার দুপুর থেকে তা মাঝে মাঝে রূপ নেয় মাঝারি ভারি বর্ষণে। অগ্রহায়ণের শুরুতে হঠাৎ করেই এমন বর্ষণ হওয়ায় বড় ধরনের লোকসান গুণতে হচ্ছে ইটভাটা মালিকদের। শনিবার উপজেলার কয়েকটি ক্ষতিগ্রস্ত ইটভাটা ঘুরে দেখা যায়, ইট তৈরির মৌসুমের শুরুতেই বৈরী আবহাওয়ার কারণে  শ্রমিকরা বৃষ্টিতে নষ্ট কাঁচা ইট সরাতে ব্যস্ত সময় পার করছেন।
তারা জানান, প্রত্যেক মৌসুমে এ সব ভাটায় কয়েক দফায় ইট তৈরি করা হয়। সে অনুযায়ী প্রতিটি ভাটায় বছরে ৬০ থেকে ৭০ লাখ ইট তৈরি হয়। অধিকাংশ ইট ভাটায় প্রথম দফায় ইট তৈরি করা হচ্ছে।
ইটভাটার মালিকরা জানান, বেশ কয়েকদিন ধরে তারা কাঁচা ইট তৈরি করে রোদে শুকিয়ে তা পুড়িয়ে পাকা করার প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছিল। কিন্তু গত তিন দিনের বৃষ্টির কারণে পানিতে ভিজে লাখ লাখ টাকার কাঁচা ইট ভেঙে নষ্ট হয়ে গেছে। বৃষ্টিতে ইটভাটার চুলার আগুনের তাপমাত্রা কমে গিয়েছে বলে জানান তারা। ফলে চুলার তাপমাত্রা স্বাভাবিক আনতে তাদের বাড়তি কয়লা খরচ করতে হচ্ছে। ভাঙ্গুড়া রয়েল ব্রিক্স কোম্পানির মালিক নাসু মোল্লা জানান, তিন দিনের বৃষ্টিতে কাঁচা ইটের প্রায় ৪ লাখ ইট নষ্ট হয়ে গেছে। যে ক্ষতি এই মৌসুমে পুষিয়ে নেয়া সম্ভব নয়। এ বছর তাকে বড় অংকের লোকসান গুনতে হবে। বিআইবি ব্রিক্সের ম্যানেজার বিদ্যুৎ কুমার ঘোষ জানান, কয়েকদিন আগে তৈরি করা ইট রোদে শুকানো হচ্ছিল। কিন্তু অসময়ে বৃষ্টির পানিতে ভিজে ইটগুলো নষ্ট হয়ে যায়। এতে নির্দিষ্ট পরিমাণ আর্থিক ক্ষতিসহ মাঠ পরিষ্কার করতে অতিরিক্ত অনেক টাকা গুণতে হচ্ছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ