ঢাকা, শুক্রবার 1 December 2017, ১৭অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

৫ হাজার উইঘুঁরের খোঁজে সিরিয়ায় ‘স্পেশাল ফোর্স’ পাঠাচ্ছে চীন

৩০ নবেম্বর, আশারক আল-আওসাত : চীনের সংখ্যালঘু উইঘুঁর মুসলমানদের মৌলিক অধিকার খর্ব ও তাদের ওপর নির্যাতনের অভিযোগ বহু পুরোনো। এবার সিরিয়ায় বিশেষ বাহিনী পাঠাচ্ছেন চীন দেশটির ভাষায় সেখানে ৫ হাজার উইঘুঁর মুসলমান রয়েছে যারা প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদের সরকারের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করছে। চীনের এই সংখ্যালঘু মুসলমানদের অনেকে দক্ষিণ পূর্ব এশিয়া ও তুরস্ক হয়ে অবৈধ অভিবাসনের মাধ্যমে সিরিয়ায় পৌঁছেছে বলে বলা হচ্ছে। পশ্চিম সিরিয়ায় মায়মিন রুশ সামরিক ঘাঁটি থেকে বলা হচ্ছে চীনের ওই স্পেশাল ফোর্সের সেনারা ইসলামিক স্টেট তুর্কিস্তানের মোকাবেলা করবে। সিরিয়ার রাজধানী দামেস্কের আশে পাশের এলাকায় ইসলামিক স্টেট তুর্কিস্তানের যোদ্ধারা সক্রিয় রয়েছে। ফেসবুকে দেওয়া এক পোস্টে চীনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে দেশটির স্পেশাল ফোর্সে দুটি ইউনিট ‘টাইগারস অব সাইবেরিয়া’ ও ‘নাইট টাইগারস’কে সিরিয়ায় পাঠানো হচ্ছে। তারা ইসলামিক স্টেট তুর্কিস্তানের মোকাবেলা ছাড়াও সিরিয়া সরকারকে বিদ্রোহী দমনে সহায়তা করবে। ধারণা করা হয় ইসলামিক এস্টেট তুর্কিস্তান আন্দোলনে আড়াই হাজার যোদ্ধা তৎপর রয়েছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দফতর এ সংগঠনটিকে সন্ত্রাসী বলে অভিহিত করেছে। পাকিস্তানের তেহরিক-ই-তালিবানের সঙ্গেও ইসলামিক এস্টেট তুর্কিস্তানের যোগাযোগের কারণে দেশটির ওপর চীনও ওই সংগঠনটির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলে আসছে। মিডিল ইস্ট মনিটর গত সপ্তাহে এক প্রতিবেদনে জানায়, সিরিয়ার প্রেসিডেন্টের উপদেষ্টা বোথাইনা শাবানের সঙ্গে এক বৈঠকে চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই’ দেশটির সরকারের সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের প্রশংসা করেন। এর আগে ২০১৫ সালে সিরিয়ার লাতাকিয়ায় চীনের ৫ হাজার সেনা সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে অভিযানে অংশ নেয়। 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ