ঢাকা, শুক্রবার 1 December 2017, ১৭অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

আজ থেকে চট্টগ্রাম আউটার স্টেডিয়ামে মাসব্যাপী বিজয় মেলা শুরু

চট্টগ্রাম অফিস : আজ শুক্রবার চট্টগ্রাম আউটার স্টেডিয়ামে মাসব্যাপী মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা শুরু হচ্ছে। আগামী ১০ ডিসেম্বর বেলা ২.৩০ মিনিটে এম.এ আজিজ স্টেডিয়াম সম্মুখস্থ সড়কদ্বীপে বিজয় শিখা প্রজ্জ্বলনের মধ্যে দিয়ে জিমনেশিয়াম চত্বরে ১০ দিন ব্যাপী মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলার বিজয় মঞ্চে মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিচারণ, আলোচনা সভা ও উদ্দীপনামূলক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশনার কার্যক্রম শুরু হবে। উদ্বোধনী দিনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন, এম.পি। এছাড়া ৫ ডিসেম্বর লালদীঘি ময়দানে অনূর্ধ্ব ১৮ বিজয় ফুটবল টুর্নামেন্ট শুরু হবে এবং ১১ ডিসেম্বর কর্ণফুলী নদীতে ঐতিহ্যবাহী সাম্পান বাইচ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা পরিষদের এক সাংবাদিক সম্মেলনে এই তথ্য জানানো হয়। এতে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন মেলা পরিষদের মহাসচিব মোহাম্মদ ইউনুছ।

 লিখিত বক্তব্য বলা হয় অনেক প্রতিকূলতা অতিক্রম করে মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা ২৯ বছরে পদার্পণ করতে যাচ্ছে। আজ থেকে ২৮ বছর আগে একটি বৈরী সময়ে বিপ্লবতীর্থ চট্টগ্রামে মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা শুরু হয়েছিল। এই মেলা মুক্তিযুদ্ধের অবিনাশী চেতনাকে প্রজন্ম পরম্পরায় পৌঁছে দিতে টেকনাফ থেকে তেঁতুলিয়া পর্যন্ত বিস্তৃত হয়েছে। সংগত কারণেই এই বিজয় মেলা বাঙালির মিলন তীর্থে পরিণ হয়েছে। প্রতি বছর এই মেলায় বাঙালির ইতিহাস, ঐতিহ্যে, কৃষ্টি ও সংস্কৃতিকে গভীরতর আবেগের মাধ্যমে উপস্থাপন করা হয়। তাই বিজয় মেলা বাঙালির অস্তিত্বের শিকড়ের সন্ধান জানান দেয়। অশুভ শক্তি এই বিজয় মেলার বিরুদ্ধে নানাবিধ প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি করেছিল। মুক্তিযোদ্ধা-জনতা সম্মিলিত শক্তিতে এই প্রতিবন্ধকতা অতিক্রম করা হয়েছে। তাই মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা বাঙালির আবশ্যিক ইতিহাসের একটি অবিচ্ছেদ্য অংশ।

সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা পরিষদের কো-চেয়ারম্যান বদিউল আলম, জাহাঙ্গীর চৌধুরী, অমল মিত্র, মহাসচিব আহমেদুর রহমান ছিদ্দিকী, এম.এ মনছুর, পান্টু লাল সাহা, মেলা পরিষদের কর্মকর্তা আবু তাহের, আবুল মনছুর, ফরিদ মাহমুদ, মহিলা স্কোয়ার্ডের নেত্রী মমতাজ খান, হাসিনা আকতার টুনু হাজী সাহাবুদ্দিন, সাজেদুল ইসলাম চৌধুরী মিল্টন প্রমুখ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ