ঢাকা, সোমবার 4 December 2017, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

সোনার বাংলার স্বপ্ন আমাদেরও -ভারতীয় হাইকমিশনার

স্টাফ রিপোর্টার : বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার হর্ষবর্ধন শ্রিংলা বলেছেন, ‘আপনাদের সোনার বাংলার স্বপ্ন, আমাদেরও স্বপ্ন। বাংলাদেশের উন্নয়নের জন্য ভারত আপনাদের সহযোগিতা করতে প্রস্তুত। আমরা অবশ্যই শান্তি ও সংহতিতে ভালো প্রতিবেশী দেশ হিসেবে একে অন্যের পাশে থাকব।’
গতকাল রোববার সকালে পিরোজপুরের ভাণ্ডারিয়া পৌরসভায় ভারত সরকারের অর্থায়নে সুপেয় পানি সরবরাহ প্রকল্পের কাজের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন হর্ষবর্ধন শ্রিংলা। পৌর শহরের ওভারব্রিজ এলাকায় তিনি ফলক উন্মোচন করেন। এ সময় বাংলাদেশের পরিবেশ ও বনমন্ত্রী আনোয়ার হোসেন উপস্থিত ছিলেন।
ভারত সরকার সাড়ে ১১ কোটি টাকা ব্যয়ে ভাণ্ডারিয়া পৌরসভায় সুপেয় পানি সরবরাহ প্রকল্পের আওতায় ১১টি স্থানে ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্ট তৈরি করবে।
এর আগে সকাল ১১টায় একটি হেলিকপ্টারে হর্ষবর্ধন শ্রিংলা ভাণ্ডারিয়ায় আসেন। এ সময় বনমন্ত্রীসহ প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা হেলিপ্যাডে তাকে ফুল দিয়ে অভ্যর্থনা জানান।
পরে ভাণ্ডারিয়া মজিদা বেগম মহিলা মহাবিদ্যালয়ে প্রাঙ্গণে এক সুধী সমাবেশে যোগ দেন হর্ষবর্ধন শ্রিংলা। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বনমন্ত্রী আনোয়ার হোসেন।
অনুষ্ঠানে ভারতীয় হাইকমিশনার হর্ষবর্ধন শ্রিংলা বলেন, ‘১৯৭১ সালে বঙ্গবন্ধুর উৎসাহে বাংলাদেশের মুক্তিযোদ্ধাদের সঙ্গে ভারতীয় সৈনিকদের রক্তদান দুই দেশের ঐক্যের একটি বড় অধ্যায়। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও ইন্দিরা গান্ধী ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের একটি শক্তিশালী সম্পর্কের বীজ বপন করেছিলেন। বর্তমানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বে এ সম্পর্ক আরও নতুন উচ্চতায় পৌঁছে গেছে। আশা করছি, আমাদের এই সম্পর্ক চিরদিন অবিচ্ছেদ্য থাকবে।’
শ্রিংলা বলেন, ‘বন্ধুত্বের চেতনা থেকে আমরা ভান্ডারিয়া উপজেলায় ১১টি স্থানে ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্ট উদ্বোধন করেছি। ভারত বাংলাদেশে অনেক প্রকল্প হাতে নিয়েছে। গত পাঁচ বছরে ভারত বাংলাদেশে ১১০ কেটি টাকায় ২৪টি প্রকল্পের কাজ শেষ করেছে। ওই প্রকল্পগুলো বাংলাদেশের মানুষের জীবনে গুণগত পরিবর্তন আনবে। বর্তমানে ১১০০ কোটি টাকার আরও ৫৯টি প্রকল্পের কাজ চলছে।
পিরোজপুর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মহিউদ্দিন মহারাজের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সুধী সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন- পিরোজপুরের জেলা প্রশাসক মো. খায়রুল আলম সেখ, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সালাম কবির, ভান্ডারিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আতিকুল ইসলাম, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহিন আক্তার প্রমুখ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ