ঢাকা, মঙ্গলবার 5 December 2017, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

সুন্দরগঞ্জে ৬ জামায়াত কর্মী গ্রেফতার

সুন্দরগঞ্জ (গাইবান্ধা) সংবাদদাতা : গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে ছয় জামায়াত কর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গত রোববার রাতে পুলিশ অভিযান চালিয়ে ছয় জামায়াত কর্মীকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃতরা হলেন-সুন্দরগঞ্জ পৌর সভার ছয় নং ওয়ার্ডের কফিল উদ্দিনের ছেলে ও খানাবাড়ি দাখিল মাদরাসার সুপার ইয়াকুব আলী, বামনজল গ্রামের দছিম উদ্দিনের ছেলে খামার মনিরাম দাখিল মাদরাসার সুপার হাসান আলী, চাচীয়া মীরগঞ্জ গ্রামের বিরাজ উদ্দিনের ছেলে চাচীয়া, এ আর আশরাফিয়া দাখিল মাদরাসার সহকারী মৌলভী লুৎফর রহমান, নিজামখাঁ গ্রামের বন্দে আলীর ছেলে ফয়জার রহমান ব্যাপারী, সুর্বনদহ গ্রামের খলিলুর রহমানের ছেলে বাদশা মিয়া ও একই গ্রামের সোলায়মান মিয়ার ছেলে জামায়াত কর্মী হয়রত আলীকে তাদের নিজ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করা হয়। থানার ওসি আতিয়ার রহমান জানান, তাদের বিরুদ্ধে একাধিক মামলা রয়েছে।
শিক্ষক কারাগারে
গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার চন্ডিপুর এটিএন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির বিজ্ঞান বিভাগের জনৈক ছাত্রী ধর্ষণ মামলায় শিক্ষক এখন কারাগারে। গত রোববার রাতে ওই বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক (কম্পিউটার) এ.এফ.এম সাজ্জাদুল করিম টিপুকে গ্রেফতার করে পুলিশ।
মামলা সূত্রে জানা গেছে, গত ফেব্রুয়ারি মাসে সাজেশন দেয়ার কথা বলে অপেক্ষা করে বিদ্যালয় ছুটির পর সকল ছাত্রী চলে গেলে শিক্ষক সাজ্জাদুল করিম টিপু ওই ছাত্রীকে স্কুল ক্যাম্পাসে ধর্ষণ করে এবং ধর্ষণের চিত্র মোবাইলে ভিডিও করা হয়েছে বলে জানিয়ে কাউকে বলতে নিষেধ করে। পরবর্তীতে ধর্ষণ চিত্র ইন্টারনেটে ছেড়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে বিভিন্ন দিন বিভিন্ন সময় ওই শিক্ষক ছাত্রীকে ধর্ষণ করে। বাধ্য হয়ে ওই ছাত্রী তার পিতা-মাতাকে ঘটনাটি জানায়। ছাত্রীর পিতা বিদ্যালয়ের সভাপতি ও প্রধান শিক্ষকের নিকট বিচার প্রার্থনা করে ব্যর্থ হয়। অবশেষে ছাত্রীর পিতা রোববার দিবাগত রাতে বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করলে পুলিশ শিক্ষক সাজ্জাদুল করিম টিপুকে গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরণ করে। সাজ্জাদুল করিম টিপু উপজেলার কালিরখামার গ্রামের রেজাউল করিম রেজার ছেলে বলে জানা গেছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ