ঢাকা, বৃহস্পতিবার 7 December 2017, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

নতুন ধানের মৌ মৌ গন্ধে মাতোয়ারা কৃষকরা

তাড়াশ (সিরাজগঞ্জ): আমন ধান কাটছে কৃষক

শাহজাহান তাড়াশ (সিরাজগঞ্জ) থেকে: চলতি বছরের রোপা ও বোনা আমন ধান কাটা প্রায় শেষের দিকে।
নতুন ধানের মৌ মৌ গন্ধে কৃষকের মুখে হাসি ফুটেছে। সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলায় এবছর ৪ হাজার হেক্টর জমিতে বোনা আমন ও ১০ হাজার ২২০ হেক্টর জমিতে রোপা আমনের আবাদ করা হয়েছে। বিভিন্ন জাতের রোপা ও বোনা আমন ধান কাটা শুরু হয়েছে প্রায় একমাস আগে। আমন ধানের বাম্পার ফলনে এ বছর কৃষকের চোখে মুখে হাসি ফুটেছে। কৃষকেরা নতুন ধানের আশানুরূপ দাম পেয়েও বেজায় খুশি। 
কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর জানায়, উপজেলার মাঠে বোনা ও রোপা আমন সরসড়িয়া, দিঘা, সাদা দিঘা, কাজলদিঘা ও রোপা আমন ধানসহ বিভিন্ন জাতের ধান কাটা প্রায় শেষভাগে। এবছর বন্যায় অনেকটা ক্ষতির সম্মুখীন হয় এ উপজেলার কৃষকেরা। ক্ষতি পুষিয়ে উঠতে কৃষকেরা অনেক পরিশ্রম করে চাষাবাদ করেছেন। বন্যা পরবর্তী রোপা আমনের বাম্পার ফলন হওয়ায় তারা অনেক খুশি। বোনা ও রোপা আমন ধান পেকে ওঠায় ধান কাটা ও মাড়াই কাজ চলছে পুরোদমে।
কৃষকেরা জানান, প্রকারভেদে বিভিন্ন মাঠে বিঘা প্রতি ৮-১২ মণ হারে ফলন হচ্ছে। আশাতীত ফলন হওয়ায় কৃষকেরা খুশি।
তাড়াশ উপজেলার তালম ইউনিয়নের গুল্টা গ্রামের কৃষক ফরিদুল ইসলাম জানান, রোপা আমন ধানের বাম্পার ফলন হচ্ছে।
মাধাইনগর ইউনিয়নের ভাদাস গ্রামের কৃষক শাহ-আলম বলেন, রোপা ও বোনা আমন কৃষকের লাভের আবাদ। রাসায়নিক সার ও কীটনাশকের খরচ কম থাকায় যে ফলন পাওয়া যায় তাতেই কৃষকের লাভবান হয়।
এ বছর রোপা আমন ধানে কিছুটা পোকার আক্রমণ হওয়ায় শঙ্কিত হয়ে পড়েছিলাম। তবে উপজেলার বিভিন্ন হাট বাজারে নতুন আমন ধান মণ প্রতি ৮৫০-৯৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।
উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ সাইফুল ইসলাম জানান, এ বছর আমন ধান আবাদের বাম্পার ফলন হচ্ছে। আশা করা যাচ্ছে চলতি মৌসুমে আমন ধানের উৎপাদন ভালো হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ