ঢাকা, সোমবার 11 December 2017, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ২১ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

অধ্যক্ষ প্রফেসর নজরুল ইসলামের পরপর দু’টি এ্যাওয়ার্ড লাভ

রাজশাহী অফিস : শিক্ষা ও মানব সেবায় বিশেষ অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ রাজশাহী ইসলামী ব্যাংক মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ও হাসপাতালের পরিচালক প্রফেসর ডা. মো. নজরুল ইসলামকে স্বাধীনতা সংসদের উদ্যোগে ‘হিউম্যান রাইটস্ শাইনিং পার্সোনালিটি এ্যাওয়ার্ড-২০১৭’ এবং শেরে বাংলা গবেষণা পরিষদের উদ্যোগে ‘শেরে বাংলা পার্সোনালিটি এ্যাওয়ার্ড-২০১৭’ প্রদান করে। সমাজে আর্দশ ডাক্তার তৈরি, অসহায় ও দরিদ্র রোগীদের বিনামূল্যে চিকিৎসা সুবিধা প্রদানে বিশেষ অবদান রাখায় তিনি এই এ্যাওয়ার্ড লাভ করেন। গত ২ ডিসেম্বর শেরে বাংলা ফজলুল হক গবেষণা পরিষদ এবং গত ৮ ডিসেম্বর স্বাধীনতা সংসদের উদ্যোগে এক জাকজমকপূর্ণ অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে তাঁকে এই এ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হয়। এদিকে এই সম্মাননা লাভে ইসলামী ব্যাংক মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সকল শিক্ষক-শিক্ষিকা, চিকিৎসক, ছাত্র-ছাত্রী, কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ ও শুভাকাঙ্খিরা প্রফেসর নজরুল ইসলামের প্রশংসা করেন ও তাঁর দীর্ঘায়ু কামনা করেন। তিনি পেশাগত জীবনে দেশে-বিদেশে বিভিন্ন স্বাস্থ্য সেবা প্রতিষ্ঠানের দায়িত্ব পালন করেন। তিনি দিনাজপুর মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ছিলেন। বর্তমানে তিনি রাজশাহী ইসলামী ব্যাংক মেডকেল কলেজের অধ্যক্ষ ও ডাইরেক্টর এর দায়িত্ব পালন করছেন। ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য উন্নত শিক্ষা কার্যক্রম, মুক্তিযোদ্ধা ও দরিদ্র-মেধীবা কোটায় ছাত্র-ছাত্রী ভর্তিতে সরকারী বিধিমালা অনুসরণ, দরিদ্র রোগীদের ফ্রি চিকিৎসা সেবার নিশ্চয়তা প্রদানে ডা. নজরুল ইসলাম  অগ্রণী ভূমিক পালন করেন। উল্লেখ্য, এর আগে ডা. নজরল ইসলাম গত ২১ নভেম্বর ঢাকায় অনুষ্ঠিত এক অনুষ্ঠানে মাদার তেরেসা গোল্ড মেডেল-২০১৭ এ ভূষিত হন। প্রফেসর নজরুল ইসলাম ১৯৫৪ সালে ঠাকুরগাঁও উপজেলার রায়পুর ইউনিয়নের ছেপড়ীকুড়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ঠাকুরগাঁও জেলা স্কুল থেকে ১৯৬৯ সালে এস.এস.সি এবং রাজশাহী কলেজ থেকে ১৯৭২ সালে এইচ.এস.সি পরীক্ষায় কৃতিত্বের সাথে পাশ করেন। তিনি রাজশাহী মেডিকেল কলেজ থেকে ১৯৭৮ সালে এম.বি.বি.এস পাশ করেন। পরবর্তীতে তিনি ঢাকা আইপজিএমআর থেকে এনাটমিতে এম.ফিল, গ্ল্যাসগো ইউনিভার্সিটি থেকে এম.এস এবং অস্ট্রেলিয়ার টঘঝড থেকে মেডিকেল এডুকেশনে ¯œাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন। এছাড়া চাকুরী জীবনে তিনি শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ ও মালেয়েশিয়ায় দীর্ঘদিন শিক্ষকতা পেশায় নিয়োজিত ছিলেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ