ঢাকা, মঙ্গলবার 12 December 2017, ২৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ২২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

ধর্ষণচেষ্টা মামলায় সুনামগঞ্জে শ্রমিকলীগ নেতা কারাগারে

সিলেট ব্যুরো : সুনামগঞ্জ পৌর এলাকার ১নং ওয়ার্ডের নবীনগরে চতুর্থ শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণচেষ্টার মামলায় সুনামগঞ্জের শ্রমিকলীগ নেতা মলয়কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গত রোববার গভীর রাতে সুনামগঞ্জ সদর থানা পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে। গতকাল সোমবার মলয়কে আদালতে হাজির করলে বিজ্ঞ আদালত তাকে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন। ধর্ষণচেষ্টার ঘটনায় সদর মডেল থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা দায়ের করেন নির্যাতিত ছাত্রীর মা। শ্রমিকলীগ নেতা মলয় চন্দ (৩৫) শহরের নবীনগর ধোপাখালী এলাকার মনিন্দ্র চন্দ’র ছেলে। তিনি সুনামগঞ্জ জেলা শ্রমিক লীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য। নির্যাতিত ছাত্রী স্থানীয় একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৪র্থ শ্রেণিতে লেখাপড়া করে।
মামলা ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গত রোববার রাত সাড়ে ১২টার দিকে পৌর এলাকার নবীনগরে বাদল দাসের বাড়ির পাশে নামকীর্তণ অনুষ্ঠান চলছিল। ঘর খালি রেখে বাদল দাসের পরিবারের লোকজন কীর্তণে চলে যান। বাদল দাসের পাশেই শ্রমিক লীগ নেতা মলয় চন্দের বোনের বাড়ি। তিনিও কীর্তণে চলে যান। কীর্তণ চলাকালে বোনের খালি বসতঘরে শ্রমিক লীগের নেতা মলয় চন্দ জোরপূর্বক চতুর্থ শ্রেণির ওই ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা চালায়।
স্থানীয়রা জানান, নির্যাতিতা ছাত্রীকে নাশতা খাওয়ানোর জন্য ওই বসতঘরে নিয়ে যায় কীর্তণে আসা একই এলাকার তার বিদ্যালয়ের বান্ধবী। বাদল দাসের খালি বসতঘরে ওই দুই ছাত্রীকে পেয়ে একজনকে ঝাপটে ধরে ধর্ষণের চেষ্টা চালায় মলয় চন্দ। এ সময় অপর ছাত্রী দৌড়ে ঘর থেকে বেড়িয়ে এসে চিৎকার করলে স্থানীয়রা মলয় চন্দকে হাতেনাতে আটক করে। স্থানীয়দের মাধ্যমে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তাকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।
 পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর সুজাতা রাণী রায় গণমাধ্যমকে বলেন, খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে গিয়ে এর সত্যতা পাই। সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান, মলয় চন্দকে আদালতের নির্দেশে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ