ঢাকা, বৃহস্পতিবার 14 December 2017, ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ২৪ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

জেরুসালেম নিয়ে হঠকারীতার বিরুদ্ধে মুসলমানদের ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান

স্টাফ রিপোর্টার : জেরুসালেমকে ইসরাইয়েলের রাজধানী ঘোষণার তীব্র নিন্দা জানিয়ে এক মানববন্ধনে আইনজীবীরা বলেছেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের স্বৈরাচারী ঘোষণা প্রত্যাহার না হলে কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে। তারা এই হঠকারী সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে সকল মুসলমানদের ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানান।
গতকাল বুধবার বেলা দেড়টায় সুপ্রিম কোর্ট বার প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত মানবন্ধনে বক্তারা এই দাবি জানান। ইসরাইল কর্তৃক জেরুসালেম (আল আকসা মসজিদ) দখলের প্রতিবাদে এই মানববন্ধনে শতাধিক আইনজীবী অংশগ্রহণ করেন। এতে সভাপতিত্ব করেন সুপ্রিম কোর্ট বারের সাবেক সম্পাদক মো. গিয়াস উদ্দিন। মানববন্ধন পরিচালনা করেন আইনজীবী আশরাফ-উজ-জামান।
মানববন্ধনে জ্যেষ্ঠ আইনজীবী এ বি এম নুরুল ইসসলাম, আইনজীবী আশরাফ-উজ-জামান, আইনজীবী তৈমুর আলম খন্দকার, আইনজীবী মাওলনা আব্দুর রকিব, আইনজীবী শাহজাহান, আইনজীবী জুলফিকার আহমদ বুলবুল চৌধুরী, আইনজীবী খালেদা পান্না, আইনজীবী জাহাঙ্গীর আলম, আইনজীবী মাইনুদ্দিন, আইনজীবী জাকারিয়া সরকার, আইনজীবী জুলফিকার আহমেদ (জুনু) সহ অন্যান্য আইনজীবী বক্তব্য রাখেন।
মানববন্ধনে বক্তারা বলেন জেরুসালেমে অবস্থিত মসজিদুল আকসা মসুলমানদের প্রথম কেবলা। এই পবিত্র স্থানটি ২০০ কোটি মুসলমানদের প্রাণের সম্পদ। এই পবিত্র ভূমি রক্ষার্থে সকল মুসলমানকে ঐক্যবদ্ধভাবে এগিয়ে আসতে হবে। আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প কর্তৃক জেরুসালেমকে ইহুদীদের রাজধানী ঘোষণা করায় তীব্র নিন্দা জানিয়ে বক্তারা বলেন, ট্রাম্পের স্বৈরাচারী ঘোষণা প্রত্যাহার করা না হলে কাঠোর কর্মসূচি গ্রহণ করা হবে।
সভাপতির বক্তব্যে আইনজীবী মো. গিয়াস উদ্দিন বলেন, তুরস্কের রাষ্ট্রপতি এরদোগান জেরুসালেমকে ইহুদীদের কবল থেকে উদ্ধার করার জন্য সমস্ত মুসলিম বিশ্বকে আহ্বান করেছেন। তিনি আশা প্রকাশ করেন দীর্ঘ ৮০০ বছর এই তুরস্ক মুসলিম বিশ্বকে আবার শাসন তথা দিক নির্দেশনা দিতে বদ্ধপরিকর হয়েছে। এরদোগান প্রমাণ করেছেন যে, মুসলিম বিশ্বের নেতৃত্ব দিয়ে ইহুদী ও মার্কিন সম্রাজ্যবাদের করাল গ্রাস হতে মুসলিমদেরকে মুক্ত করতে পারবে। আগামী জানুয়ারি আবারও মানববন্ধন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ