ঢাকা, মঙ্গলবার 23 October 2018, ৮ কার্তিক ১৪২৫, ১২ সফর ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

পূর্ব জেরুজালেমে দূতাবাস খুলবে তুরস্ক

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: পূর্ব জেরুজালেমে তুরস্ক দূতাবাস খোলার ইচ্ছা প্রকাশ করেছে। রোববার দেশটির প্রেসিডেন্ট রেচেপ তায়েপ এরদোয়ান এমন ইচ্ছার কথা প্রকাশ করেন।

জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে ট্রাম্পের ঘোষণার পর এর কড়া প্রতিবাদ জানান এরদোয়ান। চলতি মাসের ৭ তারিখ ট্রাম্প জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দেন। এরপর থেকে বিশ্বব্যাপী নিন্দার ঝড় ওঠে।

ইসরায়েল বর্তমানে জেরুজালেম শহরের পুরোটাই নিয়ন্ত্রণ করে, এবং একে তারা অবিচ্ছেদ্য অংশ মনে করে। তবে  এরোয়ান কিভাবে এ উদ্যোগ বাস্তবায়ন করবেন তা নিশ্চিত করে বলা হয়নি।

তবে জেরুজালেমে ইতিমধ্যেই তুরস্কের একটি কনস্যুলেট রয়েছে।  একথাও মনে করিয়ে দেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট।

গত সপ্তাহে মুসলিম দেশগুলোর একটি শীর্ষ বৈঠক থেকে পূর্ব জেরুজালেমকে ফিলিস্তিনের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দিতে বিশ্বের অন্যান্য দেশের প্রতি আহ্বান জানানো হয়।

গত ৭ ডিসেম্বর পবিত্র জেরুজালেম শহরকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তার একতরফা এই সিদ্ধান্ত ঘোষণার ক্ষেত্রে তিনি জাতিসংঘ, আরব ও মুসলমান-অধ্যুষিত দেশ, এমনকি মার্কিন মিত্রদের আপত্তি রয়েছে। কিন্তু তিনি নিজের একগুঁয়েমি সিদ্ধান্তেই অনড় থেকেছেন।

এই ঘোষণায় তাৎক্ষণিকভাবে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে ফ্রান্স। দেশটির প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল মাখোঁ বলেছেন, তার দেশ যুক্তরাষ্ট্রের এ সিদ্ধান্তকে সমর্থন করে না। জাতিসংঘ বলেছে, ফিলিস্তিন সংকটে দ্বিরাষ্ট্রভিত্তিক সমাধানের কোনো বিকল্প নেই। আর ট্রাম্পের ঘোষণা ‘নরকের দরজা’ খুলে দিল বলে মন্তব্য করেছে ফিলিস্তিনি সশস্ত্র গোষ্ঠী হামাস। তবে একে ‘ঐতিহাসিক মাইলফলক’ বলে উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করেছে ইসরায়েল। ইসরায়েল ও ফিলিস্তিন তাদের ভবিষ্যৎ রাষ্ট্রের রাজধানী হিসেবে এ শহরকে বিবেচনা করে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ