ঢাকা, মঙ্গলবার 19 December 2017, ৫ পৌষ ১৪২৪, ২৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

মিসর সরকার অন্যায়ভাবে শাস্তি দিয়ে মানবাধিকার লংঘন করেছে -অধ্যাপক মুজিব

মিসরের একটি সামরিক আদালত কর্তৃক সে দেশের জনপ্রিয় রাজনৈতিক দল মুসলিম ব্রাদারহুডের ১৪ জন সদস্যকে মৃত্যুদণ্ড ও ২৪ সদস্যকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং ৫ সদস্যের প্রত্যেককে ১৫ বছর করে কারাদণ্ড প্রদানের ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত আমীর ও সাবেক এমপি অধ্যাপক মুজিবুর রহমান। 
গতকাল সোমবার দেয়া বিবৃতিতে তিনি বলেন, রাজনৈতিক প্রতিহিংসা চরিতার্থ করার হীন-উদ্দেশ্যেই মিসরের স্বৈরাচারী সরকার মুসলিম ব্রাদারহুডের নেতৃবৃন্দকে অন্যায়ভাবে সাজা প্রদান করেছে। ২০১৩ সালে মিসরের অনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট সামরিক জান্তা আবদেল ফাত্তাহ আল-সিসি সরকার সে দেশের জনগণের নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ড. মুহাম্মদ মুরসিকে অন্যায়ভাবে ক্ষমতাচ্যূত করার পর থেকেই সে দেশে মুসলিম ব্রাদারহুডের নেতা-কর্মীদের উপর চরম জুলুম-নির্যাতন চালিয়ে আসছে। মিসরের জালিম সরকার গণতন্ত্রকেও ধ্বংস করেছে। জনগণের নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ড. মুহাম্মদ মুরসি বর্তমানে কারাগারে বন্দী অবস্থায় সরকারের জুলুম-নির্যাতন ভোগ করছেন। সে দেশের স্বৈরাচারী সরকার মুসলিম ব্রাদারহুডের নেতা-কর্মীদের অন্যায়ভাবে শাস্তি দিয়ে এ সংগঠনটিকে ধ্বংস করার গভীর ষড়যন্ত্রে লিপ্ত।
তিনি বলেন, যুগে যুগে বিভিন্ন দেশে জালিম সরকার জনগণের উপর জুলুম-নির্যাতন চালিয়েছে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তারা টিকে থাকতে পারেনি। আল্লাহ জালিমদের ধ্বংস করে দিয়েছেন। বর্তমানে যেসব জালিম সরকার জনগণের উপর জুলুম-নির্যাতন চালাচ্ছে তারাও একদিন ধ্বংস হবে ইনশাআল্লাহ।
তিনি আরো বলেন, মিসরের স্বৈরাচারী সরকার কর্তৃক মুসলিম ব্রাদারহুডের নেতাদের অন্যায়ভাবে শাস্তি দিয়ে মানবাধিকার লংঘন করেছে। মিসর সরকারের মানবাধিকার লংঘনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদে সোচ্চার হওয়ার জন্য তিনি জাতিসংঘ এবং ওআইসিসহ সকল আন্তর্জাতিক সংস্থা ও মানবাধিকার সংগঠনের প্রতি আহ্বান জানান। 
মুসলিম ব্রাদারহুডের উপর অন্যায়ভাবে পরিচালিত জুলুম-নির্যাতন বন্ধ করে মিসরের নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ড. মুহাম্মদ মুরসিসহ মিথ্যা মামলায় দণ্ডপ্রাপ্ত মুসলিম ব্রাদারহুডের সকল নেতা-কর্মীকে অবিলম্বে নিঃশর্তভাবে মুক্তি দেয়ার জন্য তিনি মিসর সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ