ঢাকা, মঙ্গলবার 19 December 2017, ৫ পৌষ ১৪২৪, ২৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

সাতক্ষীরায় জামায়াত-শিবিরের ৮ নেতা-কর্মীসহ আটক ৩৬ মামলা দায়ের ৮টি

সাতক্ষীরা সংবাদদাতা : সাতক্ষীরায় পুলিশের বিশেষ অভিযানে জামায়াত-শিবিরের ০৮ নেতা-কর্মীসহ ৩৬ জনকে আটক করা হয়েছে। রোববার সন্ধ্যা থেকে সোমবার সকাল পর্যন্ত জেলার আটটি থানার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়েছে। এ সময় বিভিন্ন অভিযোগে ০৮টি মামলা দায়ের হয়েছে।
পুলিশ জানান, সাতক্ষীরা সদর থানা থেকে ০৬ জন, কলারোয়ায় ০৬ জন, তালায় ০৬ জন, কালিগঞ্জে ০২ জন, শ্যামনগরে ০৪ জন, আশাশুনিতে ০৫ জন, দেবহাটায় ০৫ জন ও পাটকেলঘাটায় ০২ জনকে আটক করা হয়েছে।
সাতক্ষীরা জেলা পুলিশের বিশেষ শাখার পরিদর্শক মিজানুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, আটককৃতদের মধ্যে তালা উপজেলার ইসলামকাঠি ইউনিয়নের জামায়াতের রোকন মোঃ আলিম সরদারসহ ০৮ জন নেতা-কর্মী রয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে নাশকতা ও মাদকসহ বিভিন্ন অভিযোগে মামলা রয়েছে।
 ভুক্তভোগীদের অভিযোগ পুলিশ যাকে ইচ্ছা তাকে আটক করছে। কোন প্রকার মামলা কিংবা ওয়ারেন্ট ছাড়ায় চলছে এসব গ্রেফতার অভিযান।
ভারতীয় শাড়ি-কাপড় উদ্ধার
সাতক্ষীরাতে বিপুল পরিমাণে ভারতীয় শাড়ি-কাপড় উদ্ধার করেছে বিজিবি। অবৈধ ভাবে ভারত থেকে এনে ঢাকাতে পাঠানোর চেষ্টা কালে বিজিবির সদস্যরা তা আটক করে। বিজিবি এক বিশেষ অভিযান চালিয়ে মাইক্রোবাস ভর্তি ১৮ গাইড ভারতীয় থ্রি-পিচ ও থান কাপড় আটক করেছে বলে সূত্র জানায়। সোমবার ভোরে সাতক্ষীরার কুলিয়া এলাকা থেকে ধাওয়া করে শহরের সুলতানপুর থেকে গাড়িসহ ওইসব মালামাল আটক করা হয়।
স্থানীয় একটি সূত্র জানায়, সাতক্ষীরা কালিগঞ্জ উপজেলার বসস্তপুর সীমান্ত দিয়ে অবৈধভাবে বিপুল পরিমাণ ভারতীয় ত্রি-পিচ ও থান কাপড় এনে একটি সাদা রং এর মাাইক্রোবাসে (ঢাকা মেট্রো- চ-৫৩-০৮৭১) ভর্তি করে। ওই মাল ঢাকায় পাচার করার জন্য নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। মাইেক্রাবাসটি ভোর সাড়ে চারটার দিকে কুলিয়া পার হওয়ার পর বাঁকাল চেকপোস্টের হাবিলদার আইয়ুব আলীর নেতৃত্বে টহলরত বিজিবি সদস্যরা ধাওয়া করে। ভোর ছয়টার দিকে গাড়িটি সুলতানপুর ক্লাবের পাশে এসে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে একটি জিওল গাছের সঙ্গে ধাক্কা লেগে পাশের খাদে পড়ে যায়। চালক ও হেলপার গাড়িটি ফেলে পালিয়ে যায়। এর পরপরই বিজিবি সদস্যরা ওই গাড়ি থেকে ১৮ গাইড থ্রি-পিচ ও থান কাপড় আটক করে।
বিজিবি’র সাতক্ষীরা ৩৮ ব্যাটালিয়নের গণসংযোগ কর্মকর্তা সুবেদার সামছুল আলম জানান, আটককৃত মাইক্রোবাসসহ ১৮ গাইড কাপড় ব্যাটালিয়ন সদর দপ্তরে নিয়ে আসা হয়েছে। মেজর আমিনুর রহমানসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা এসে মালের পরিমাণ ও মূল্য নির্ধারণ করবেন। ধারণা করা হয় এসব শাড়ি-কাপড়ের দাম কয়েক লক্ষ টাকা।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ