ঢাকা, শুক্রবার 22 December 2017, ৮ পৌষ ১৪২৪, ৩ রবিউস সানি ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

ব্যাংকিং খাতের সংকট এখন পুঁজিবাজারে

স্টাফ রিপোর্টার: আগের দিনের ধারাবাহিকতায় সপ্তাহের শেষ দিনেও ব্যাংক খাতের শেয়ারের দরপতনের প্রভাবে সার্বিক মূল্য সূচক দিয়ে লেনদেন শেষ হয়েছে পুঁজিবাজারের। ব্যাংকিং খাতের সংকট এখন পুঁজিবাজার দৃশ্যমান হচ্ছে। বাজার নেতিবাচক ধারা অব্যাহত থাকায় কমেছে সূচক এবং লেনদেন।

গতকাল বৃহস্পতিবার দিনের লেনদেন শেষে দেশের দুই শেয়ারবাজারেই লেনদেনের সঙ্গে কমেছে হাতবদল হওয়া বেশিরভাগ কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের দর।

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টায় লেনদেন শুরুর পর প্রথম দেড় ঘণ্টায় দুই শেয়ারবাজারেই মিশ্র সূচকে লেনদেন চললেও এরপর বিক্রির চাপ বেড়ে টানা দরপতন চলতে থাকে। দিন শেষে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে লেনদেন হয়েছে ৩৬৭ কোটি ৭৩ লাখ টাকা, যা আগের দিনের চেয়ে ১৪৩ কোটি ৮৫ লাখ টাকা কম।

টাকার অংকে লেনদেনে শীর্ষ ১০ কোম্পানির তালিকার শীর্ষে রয়েছে টেলিকম খাতের কোম্পানি গ্রামীণফোন। এরপরে রয়েছে যথাক্রমে ন্যাশনাল টিউবস, ব্র্যাক ব্যাংক, স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস, সিটি ব্যাংক, লাফার্জ সুরমা সিমেন্ট, রূপালী লাইফ ইন্স্যুরেন্স, আলিফ ম্যানুফ্যাকচারিং, এবি ব্যাংক ও আমরা নেটওয়ার্কস।

এ দিন ডিএসইতে হাতবদল হওয়া ৩৩১টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১০৮টির, কমেছে ১৭৪টির ও অপরিবর্তিত রয়েছে ৫৩টির। এর মধ্যে ব্যাংক খাতে তালিকাভুক্ত ৩০টি কোম্পানির মধ্যে ২১টির দর কমেছে। বাকিগুলোর মধ্যে মাত্র দুটির দাম সামান্য বেড়েছে।

ডিএসইর প্রধান সূচক বা ডিএসইএক্স ১৩ দশমিক ৬৯ পয়েন্ট কমে প্রায় ৬ হাজার ১৮২ পয়েন্টে অবস্থান করছে, ডিএসইএস বা ডিএসই শরিয়াহ সূচক ১ দশমিক ৮৪ পয়েন্ট বেড়ে প্রায় একহাজার ৩৬৬ পয়েন্টে রয়েছে, এবং ডিএস৩০ সূচক দশমিক দশমিক ২ পয়েন্ট বেড়ে প্রায় ২ হাজার ২৩১ পয়েন্টে অবস্থান করছে।

পুঁজিবাজার বিশ্লেষণী পোর্টাল স্টক বাংলাদেশের তথ্য অনুযায়ী, বৃহস্পতিবার বাজারে সূচক পতনে সবচেয়ে বড় ভূমিকা রেখেছে বিএটিবিসি। এর পরেই রয়েছে ব্যাংক খাতের চার কোম্পানির ভূমিকা। এগুলো হলো- ইসলামী ব্যাংক, সিটি ব্যাংক, রুপালী ব্যাংক ও ট্রাস্ট ব্যাংক। 

ডিএসইতে দরবৃদ্ধিতে শীর্ষ ১০টি কোম্পানির মধ্যে রয়েছে যথাক্রমে এমারেল্ড অয়েল, রিপাবলিক ইন্স্যুরেন্স, লাফার্জ সুরমা সিমেন্ট, আইসিবি এএমসিএল সেকেন্ড এনআরবি মিউচুয়াল ফান্ড, এবি ব্যাংক ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ড, আইসিবি এএমসিএল সোনালী ব্যাংক ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ড, পদ্মা ওয়েল কোম্পানি, লিবরা ইনফিউশনস, ঢাকা ইন্স্যুরেন্স ও ডরিন পাওয়ার জেনারেশনস এন্ড সিস্টেম।

দরপতনের শীর্ষ ১০টি কোম্পানির তালিকায় রয়েছে যথাক্রমে প্রগ্রেসিভ লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি, ওয়াটা কেমিক্যালস, আইটি কনসালট্যান্স, জুট স্পিনার্স, স্ট্যান্ডার্ড ইন্স্যুরেন্স, রূপালী ব্যাংক, বাংলাদেশ ওয়েল্ডিং ইলেক্ট্রোডস, প্রাইম ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স, সোনালী আঁশ ইন্ডাস্ট্রিজ ও ফাইন ফুডস।

এদিকে বৃহস্পতিবার দিন শেষে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) ১৯ কোটি ৩৩ লাখ টাকার শেয়ার হাতবদল হয়েছে যা আগের দিনের চেয়ে প্রায় ২৪ কোটি ৫৯ লাখ টাকা কম। লেনদেনে থাকা ২৩৯টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ৬৮টির, কমেছে ১৩৪টির ও অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৭টির দর।

দিন শেষে সিএসই সার্বিক সূচক সিএএসপিআই প্রায় ৫৩ দশমিক ৯২ পয়েন্ট কমে ১৯ হাজার ১২২ পয়েন্টে অবস্থান করছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ