ঢাকা, শুক্রবার 22 December 2017, ৮ পৌষ ১৪২৪, ৩ রবিউস সানি ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

ভারতকে সহজেই হারালো বাংলাদেশের মেয়েরা 

 

স্পোর্টস রিপোর্টার : সাফ অনূর্ধ্ব-১৫ নারী ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপে লিগ পর্বের শেষ ম্যাচে ভারতকে হারালো স্বাগতিক বাংলাদেশ। গতকাল বৃহস্পতিবার কমলাপুরস্থ বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী মোহাম্মদ মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচে ৩-০ গোলে জয় পেয়েছে স্বাগতিকরা। ম্যাচের ফলাফলের কোনো গুরুত্ব ছিল না। বাংলাদেশ-ভারত দুই দলই ফাইনাল নিশ্চিত করেছিল আগে। তারপরও প্রতিপক্ষ ভারত বলে কথা।

 বাংলাদেশের মেয়েদের সামনে শুরু থেকেই কোনঠাসা ছিল ভারত। মনিকা চাকমা, মারিয়া মান্ডা, সাজেদা, রিতু আর শামসুন্নাহরদের বৃষ্টির মতো আক্রমণে যখন দিশে হারা ভারত, তখন গ্যালারিতে স্লোগান উঠলো মেয়েদের একটি একটি নাম ধরেও। কখনো ‘মনিকা, মনিকা’ কখনো ‘মারিয়া-সাজেদা’। রিতু-শামসুন্নাহরও দর্শকদের মুখেমুখে। এ অঞ্চলের ফুটবলে প্রধান প্রতিপক্ষ ভারতের মেয়েদের ৩-০ গোলে হারিয়ে লাল-সবুজ জার্সিধারীরা যখন ড্রেসিং রুমে ফিরলো তখনো থামেনি গ্যালারির ‘বাংলাদেশ-বাংলাদেশ’ আর মনিকাদের নামে স্লোগান।

ম্যাচটি ছিল ফাইনালের আগে ‘ফাইনাল’। ঠিক যেমনটি হয়েছিল গত বছর তাজিকিস্তানে এএফসি অনূর্ধ্ব-১৪ চ্যাম্পিয়নশিপের আঞ্চলিক পর্বের ম্যাচে। সেবার ভারতকে দুইবার হারিয়েছিল বাংলাদেশ। এবার সাফ অনূর্ধ্ব-১৫ চ্যাম্পিয়নশিপেও ভারতকে দুইবার হারানোর প্রতিজ্ঞা করেছে কিশোরী ফুটবলাররা। লক্ষ্যের একটি পূরণ, এখন অপেক্ষা ফাইনালে। দুই দলের প্রথম লড়াইয়ের চিত্রটা অবশ্য ফাইনালের আগে বাংলাদেশকেই ফেভারিট হিসেবে দাঁড় করিয়ে দিয়েছে। আগের ম্যাচটিতে নেপালের জালে ১০ গোল দিয়েছিল ভারত। ওই ম্যাচের পর বাংলাদেশ-ভারতের একটি কঠিন লড়াই হবে- এমন ভবিতব্যই করেছিলেন অনেক ফুটবলবোদ্ধা। কিন্তু মাঠে সব কিছু ভুল প্রমাণ করে ভারতের মেয়েদের নাকানি-চুবানি খাইয়েছে গোলাম রব্বানী ছোটনের শিষ্যরা। বাংলাদেশের নামের পাশে গোল তিনটি। হতে পারতো এর দ্বিগুণ। অন্য দিকে ভারত একবারের জন্যও বড় পরীক্ষা নিতে পারেনি বাংলাদেশের গোলরক্ষক মাহমুদা আক্তারকে। পোস্ট ছেড়ে তাকে বেশিরভাগ সময়ই দেখা গেছে নিজেদের সীমানার মাঝামাঝি জায়গায়।

লাল-সবুজ মেয়েদের কাছে ভারত পাত্তাই পায়নি আনুষ্ঠানিকতার এ ম্যাচে। একচেটিয়া প্রাধান্যবিস্তার করে খেলেই জয় তুলে নিয়েছে গোলাম রাব্বানী ছোটনের শিষ্যরা। বাংলাদেশ এগিয়ে যায় ৩২ মিনিটে অনুচিং মগিনির গোলে। মনিকা চাকমার কর্ণার থেকে হেডে গোল করেন সাজেদার বদলি হিসেবে খেলতে নামা অনুচিং। ব্যবধান দ্বিগুণ করেই বিরতিতে যায় লাল-সবুজ জার্সিধারী মেয়েরা। বিরতির বাঁশির কয়েক সেকেন্ড আগে পেনাল্টি থেকে গোল করেন ডিফেন্ডার শামসুন্নাহার। মিডফিল্ডার শামসুন্নাহার বল নিয়ে বক্সে ঢুকলে ভারতীয় ডিফেন্ডার তাকে ফেলে দেন, তাতেই পেনাল্টি পায় বাংলাদেশ। প্রথমার্ধেই ৩-০ গোলে এগিয়ে থাকতে পারতো স্বাগতিক মেয়েরা। কিন্তু ৩৪ মিনিটে চরম ব্যর্থতার পরিচয় দেন অনুচিং মগিনি। গোলরক্ষককে কাটিয়েও লক্ষ্যভ্রষ্ট শটে তিনি সুযোগ নষ্ট করেন। ৫৪ মিনিটে ভারতের জালে তৃতীয়বার বল পাঠায় বাংলাদেশ। ডান দিকে ঢুকে ২ জন ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে কোনাকুনি শটে গোল করেন এ ফরোয়ার্ড। উল্লেখ্য শিরোপা নির্ধারনী ম্যাচে আগামী ২৪ ডিসেম্বর ভারতের বিপক্ষে লড়াবে স্বাগতিক বাংলাদেশ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ