ঢাকা, রোববার 24 December 2017, ১০ পৌষ ১৪২৪, ৫ রবিউস সানি ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

সাদুল্যাপুরে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ ॥ আটক ৩

সাদুল্যাপুর (গাইবান্ধা)  সংবাদদাতা : বাজার থেকে কাপড় কেনাকাটা করে বাড়ি ফেরার পথে গাইবান্ধার সাদুল্যাপুর উপজেলার নলডাঙ্গায় অষ্টম শ্রেণির এক স্কুলছাত্রীকে (১৪) পালাক্রমে ধর্ষণের অভিযোগে তিন যুবককে আটক করে পুলিশে সোর্পদ করেছে স্থানীয় জনতা। এ ঘটনার পর শরিবার দিন ব্যাপী বিক্ষুব্ধ জনতা ধর্ষনকারীদের দৃষ্টান্ত মূলক বিচারের দাবীতে হরতাল,মিছিল, সভা সমাবেশ অব্যাহত রেখেছেন।

শুক্রবার সন্ধ্যার পর সাদুল্যাপুর উপজেলার নলডাঙ্গা ইউনিয়নের নলডাঙ্গা রেল গেট এলাকার অদূরে সরকারি খাদ্য গুদামের পাশের একটি আখ ক্ষেতে এ ধর্ষণের ঘটনা ঘটে।

আটকরা হলেন, সাদুল্যাপুর উপজেলার নলডাঙ্গা ইউনিয়নের দশলিয়া গ্রামের দুদু মিয়ার ছেলে সোহাগ মিয়া (২১), একই ইউনিয়নের কিশামত হামিদ গ্রামের মাহফুজ রহমানের ছেলে বাবু মিয়া (২২) ও পশ্চিম খামার দশলিয়া গ্রামের শহিদুল ইসলামের ছেলে শরিফুল ইসলাম (২১)। এ ঘটনায় আরও একজন অভিযুক্ত রুবেল মিয়া (২৪) ঘটনার পর পালিয়ে যায়। সে নলডাঙ্গা ইউনিয়নের পশ্চিম খামার দশলিয়া গ্রামের আমজাদ হোসেনের ছেলে। 

 এদিকে, বিক্ষুব্ধ জনতা ঘটনার পর আটকদের মধ্যে সোহাগের বাবার রেল গেট এলাকায় অবস্থিত কনফেকশনারীতে ব্যবসা প্রতিষ্টানে ভাঙচুর চালিয়েছে। 

নির্যাতিত স্কুলছাত্রীর পরিবার ও স্থানীয়দের বরাত দিয়ে নলডাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান তরিকুল ইসলাম নয়ন জানান, বিকেলে নির্যাতিত স্কুলছাত্রীটি তার মার সঙ্গে নলডাঙ্গা বাজারে কাপড় কেনার জন্য যায়। পরে কেনাকাটা শেষে মেয়েটিকে বাড়ি যাওয়ার কথা বলে মেয়েটির মা পাশের গ্রামের তার বাবার বাড়িতে যান। 

এরপর মেয়েটি কাপড় নিয়ে একা বাড়ি ফেরার পথে সরকারি খাদ্য গুদামের কাছে সোহাগ, বাবু, শরীফুল ও রুবেল হঠাৎ তার পথরোধ করে। এসময় চারজন মিলে জোরপূর্বক মেয়েটির মুখে ওড়না চাপিয়ে পাশের আখ ক্ষেতে নিয়ে গিয়ে পলাক্রমে ধর্ষণ করে। পরে মেয়েটির চেচামেচি শব্দে আশপাশের লোকজন এসে সোহাগ, বাবু ও শরীফুল নামে তিন জনকে হাতেনাতে আটকের পর গণ ধোলাই দেন। তবে অভিযুক্ত রুবেল নামে আরেক যুবক পালিয়ে যায়। 

সাদুল্যাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বোরহান উদ্দিন জানান, ঘটনার পর তিন যুবককে আটক করা হয়েছে। এছাড়া নির্যাতিত মেয়েটির ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য শনিবার সকালে গাইবান্ধা আধুনিক সদর হাসপাতালে পাঠানো হবে। 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ