ঢাকা, সোমবার 25 December 2017, ১১ পৌষ ১৪২৪, ৬ রবিউস সানি ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

বাণিজ্য মেলা: গ্রীন টেকনোলজিতে সুদৃশ্য প্যাভিলিয়ন করছে ওয়ালটন

 

২০১৮ সালের প্রথম দিনই শুরু হচ্ছে ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলার (ডিআইটিএফ) ২৩তম আসর। যা কিনা দেশের সর্ববহৎ পণ্য মেলা হিসেবে পরিচিত। এবারের মেলাতেও দৃষ্টিনন্দন তিন-তলা প্রিমিয়ার প্যাভিলিয়ন তৈরি করছে দেশের ইলেকট্রনিক্স জায়ান্ট ওয়ালটন। প্যাভিলিয়ন নির্মাণে অনুসরণ করা হচ্ছে গ্রীন টেকনোলজি মেথড। বিপুল পরিমাণ ক্রেতা দর্শনার্থীর চাপ মোকাবেলায় নেয়া হচ্ছে সম্ভাব্য প্রস্তুতি।    নিজস্ব কর্মকর্তার পাশাপাশি অর্ধ-শতাধিক এক্সিবিটর নিয়োগ দেয়া হয়েছে। দেশী-বিদেশী ক্রেতা-দর্শনার্থীদের কাছে ‘মেইড ইন বাংলাদেশ’ খ্যাত ওয়ালটনের প্রযুক্তি পণ্য তুলে ধরতে তাদেরকে দেয়া হয়েছে উচ্চতর প্রশিক্ষণ। রাজধানীর আগারগাঁও শেরে বাংলা নগরীতে অনুষ্ঠিতব্য মেলার প্রস্তুতি পুরোদমে এগিয়ে চলছে। নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে মেলার রাস্তা-ঘাট, মূল প্রবেশদ্বারসহ অন্যান্য অবকাঠামো নির্মাণে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছে মেলার যৌথ আয়োজক প্রতিষ্ঠান বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ও রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো’র দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা। পিছিয়ে নেই মেলায় বরাদ্দকৃত প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রস্তুতি। দিন-রাত কয়েকশ শ্রমিক কাজ করছেন। বিশেষ করে, ওয়ালটনসহ মেলায় অংশ নেয়া বেশিরভাগ দেশীয় প্রতিষ্ঠানগুলোর প্যাভিলিয়ন নির্মাণের কাজ প্রায় শেষের দিকে।  মেলার প্রস্তুতি প্রসঙ্গে ওয়ালটন প্যাভিলিয়নের (নম্বর-২৬) সমন্বয়ক শাহ শহীদ চৌধূরী জানান, প্যাভিলিয়ন নির্মাণের ৮০ ভাগ কাজ শেষ হয়েছে। বাইরের কাঠামোর কাজ প্রায় চুড়ান্ত। চলছে অভ্যন্তরীণ সাজ-সজ্জার কাজ।  তিনি বলেন, প্রযুক্তি পণ্যে ওয়ালটন দেশের এক নম্বর ব্র্যান্ড। যে কারনে ওয়ালটনের প্রতি সবার একটি বাড়তি আকর্ষণ থাকে এবংয় সবাই পণ্য কিনতে বা দেখতে আসেন। একসঙ্গে যাতে অনেক ক্রেতা-দর্শনার্থী প্রবেশ এবং বের হতে পারে সেজন্য ১১ ফুট চওড়া প্রবেশদ্বার করা হচ্ছে। শারীরিকভাবে অসুস্থ বা প্রতিবন্ধী ক্রেতা-দর্শণার্থীরা যাতে সহজে ওয়ালটন প্যাভিলিয়নে প্রবেশ করতে পারে সেজন্য র‌্যাম্প সিঁড়ির (ধাপ বিহীন) ব্যবস্থা রাখা হচ্ছে। বরাবরের মতো এবারও নিচতলা থেখে দ্বিতীয় তলায় উঠার সুবিধার্থে থাকছে অত্যাধুনিক সুপরিসর লিফট। পাশাপাশি থাকবে ৭ ফুট চওড়া সিঁড়ি। প্রেসবিজ্ঞপ্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ