ঢাকা, সোমবার 25 December 2017, ১১ পৌষ ১৪২৪, ৬ রবিউস সানি ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

সরকারি জমিতে বিল্ডিং ও ব্রিক ফিল্ড!

নবীগঞ্জ থেকে সংবাদদাতা : হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ উপজেলায় সরকারি জায়গার ওপর ভবন ও ইটভাটা নির্মাণ করায় এলাকাবাসীর মধ্যে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। চলতি বছর জুন মাসে এ ব্যাপারে বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ দেওয়ার পর দুদক তদন্ত শুরু করে।
অভিযোগকারী নবীগঞ্জ উপজেলার আউশকান্দি গ্রামের আবদুল মতলিবকে গত ২২ জুন চিঠি দিয়ে জানানো হয় বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তবে এখনও তদন্তের অগ্রগতি সম্পর্কে বাদীকে কিছুই জানানো হয়নি। এ ব্যাপারে নবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার দুই দফা শুনানি করেছেন। লন্ডন প্রবাসী বুলবুল আমীন ও তার ভাই বিএনপি নেতা সুহুল আমীন দীর্ঘদিন ধরে আউশকান্দি ইউপির উলুকান্দি গ্রামের সরকারি কয়েক একর ভূমি জবরদখল করে ইটভাটা ও ভবন নির্মাণ করে আসছে। প্রকৃত এ জমিতে ভিটেবাড়িহীন ভূমিহীনদের ওই ভূমি পাওয়ার কথা। কিন্তু বুলবুল আমীন ও তার ভাই সুহুল আমীন প্রভাবশালী হওয়ায় এলাকার কেউ তাদের বিরুদ্ধে কথা বলার সাহস করেনি। তারা আবদুল মতলিবের পক্ষের লোকদের ভূমি দখল করতে উঠেপড়ে লেগেছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে। এ ব্যাপারে মতলিবের লোকজন প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, জনপ্রসাশন মন্ত্রণালয়, ভূমিমন্ত্রী, মহাপরিচালক দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক), র‌্যাব-৯, জেলা প্রশাসক হবিগঞ্জ, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক), অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব), উপ-পরিচালক জেলা দুর্নীতি দমন কমিশন, পুলিশ সুপার, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নবীগঞ্জ থানা, সহকারী কমিশনারসহ (ভূমি) বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ করেন। অভিযোগকারী আবদুল মতলিব বলেন, কোনো ব্যবস্থা না নেওয়ায় আমি এখন হতাশায় আছি। আমাকে অভিযোগ প্রত্যাহারের জন্য হুমকি দেওয়া হচ্ছে। এ ব্যাপারে দখলকারী হাজি সুহুল আমীন বলেন, সরকারি কোনো জায়গা আমরা দখল করিনি।
সরকারের জায়গা দখল হলে প্রশাসন ব্যবস্থা নেবে। এ ব্যাপারে স্থানীয় গোপলার বাজার তহসিল অফিসের সহকারী কর্মকর্তা আশুতোষ বণিক বলেন, আমাদের কাছে এখন পর্যন্ত কোনো আদেশের কপি আসেনি। এর জন্য কোনো কিছু করতে পারছি না। এ ব্যাপারে নবীগঞ্জ উপজেলা ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার ওলিউল্লাহ বলেন, অভিযোগ পেয়েছি। অচিরেই সরেজমিন গিয়ে খতিয়ে দেখব। এ ব্যাপারে ইউএনও তাজিনা সরোয়ার বলেন, অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেব।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ