ঢাকা, শুক্রবার 29 December 2017, ১৫ পৌষ ১৪২৪, ১০ রবিউস সানি ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

একজনকে ধরে নিয়ে গেছে বিএসএসফ  আহত আরো একজন

 

লালমনিরহাট সংবাদদাতা : জেলার পাটগ্রাম উপজেলার বুড়িমারী সীমান্ত হতে আব্দুল লতিফ (২৫) নামে এক বাংলাদেশী রাখালকে ধরে নিয়ে গেছে বিএসএফ। এসময় আজম আলী (২২) নামে অপর এক রাখাল বিএসএফ’র নির্যাতনে গুরুতর আহত অবস্থায় পালিয়ে এসে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়েছেন।

আটক যুবক নওগা জেলার আত্রাই উপজেলার রফিকুল ইসলামের ছেলে ও আহত যুবক লালমনিরহাটের বুড়িমারী ইউনিয়নের উফারমারা গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে। 

আটক যুবকের পরিবার ও বিবিজি সূত্রে জানা গেছে, গতকাল বৃহস্পতিবার ভোর রাতে আব্দুল লতিফ ও আজম আলীসহ কয়েকজন রাখাল গরু আনতে বুড়িমারী সীমান্তের ৮৪৩ নং মেইন পিলার ও ৩নং সাব পিলার সংলগ্ন ধরলা নদী পাড় হয়ে ভারতে অনুপ্রবেশ করে। পরে সকালে গরু নিয়ে ফেরার পথে ভারতীয় কোচবিহার-৬১ বিএসএফ ব্যাটালিয়নের চ্যাংরাবান্ধা ক্যাম্পের টহল দলের হাতে আজম ও আব্দুল লতিফ ধরা পড়লেও অন্যরা পালিয়ে আসে। এ সময় বিএসএফ টহল দলের সদস্যরা আটক দুই যুবককে মারধর করেন। একপর্যায়ে বিএসএফের চোখ ফাঁকি দিয়ে আজম আলী বাংলাদেশে পালিয়ে আসতে সক্ষত হয়।

পাটগ্রাম হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. রফিকুল ইসলাম বলেন, আহত আজম আলী প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে বিজিবি ও পুলিশের হাতে গ্রেফতারের ভয়ে তিনি গা ঢাকা দিয়েছেন। তবে তার শরীরের আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) রংপুর ৬১ ব্যাটালিয়নের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক মেজর মুনীরুজ্জামান জানান, এ ঘটনায় কড়া প্রতিবাদ জানিয়ে দুই দেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনীর কোম্পানি কমান্ডার পর্যয়ে পতাকা বৈঠকের আহ্বান জানানো হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ