ঢাকা, রোববার 31 December 2017, ১৭ পৌষ ১৪২৪, ১২ রবিউস সানি ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

রাজশাহীতে পাসের হার প্রাথমিকে ৯৩.৮৫  জেএসসিতে ৯৫.৫৪ ইবতেদায়ী ৯৬.৩৬

রাজশাহী : জেএসসিতে কৃতি অর্জনকারী হেলেনাবাদ সরকারি গার্লস স্কুলের উচ্ছ্বসিত শিক্ষার্থীরা               -সংগ্রাম 

 

 

রাজশাহী অফিস : গতকাল শনিবার প্রকাশিত রাজশাহী জেলায় প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় পাশের হার দাঁড়িয়েছে ৯৩ দশমিক ৮৫ শতাংশ, জেএসসিতে ৯৫ দশমিক ৫৪ এবং ইবতেদায়ী সমাপনীতে ৯৬ দশমিক ৩৬। 

তিনটি শিক্ষা সমাপনি পরীক্ষার ফলাফল ঘোষণার পর রাজশাহীর স্কুলে স্কুলে ছিল আনন্দের বন্যা। একইভাবে মাদ্রাসাগুলোতেও লক্ষ্য করা গেছে শিক্ষার্থীদের খুশির বন্যা। 

জেএসসি পরীক্ষায় রাজশাহী শিক্ষাবোর্ডে এবার পাসের হার ৯৫ দশমিক ৫৪ শতাংশ। এর মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৩৭ হাজার ৬৩৩ জন শিক্ষার্থী। গতবার জিপিএ-৫ পেয়েছিল ৪০ হাজার ৪৭১ জন। এ বোর্ডে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ২ লাখ ৪২ হাজার ৪৫১ জন। এর মধ্যে মেয়ে পরীক্ষার্থী ১ লাখ ২০ হাজার ৭৯৬ এবং ছেলে ১ লাখ ১৬ হাজার ৩০৪ জন। গতবার এই শিক্ষা বোর্ডে পাসের হার ছিল ৯৭ দশমিক ৬৮ শতাংশ। মোট পরীক্ষার্থী ছিল দুই লাখ ২৬ হাজার ৮৯২ জন। এর মধ্যে পাস করেছিল দুই লাখ ২১ হাজার ৬১৭ জন। পরীক্ষায় ছেলেদের মধ্যে অংশ নেয় এক লাখ ১১ হাজার ৮০৬ জন। পাস করে এক লাখ আট হাজার ৯২৮ জন। মেয়েদের মধ্যে পরীক্ষায় এক লাখ ১৫ হাজার ৮৬ জন অংশ নিয়ে পাস করে এক লাখ ১২ হাজার ৬৮৯ জন।  এদিকে এবার পিইসিতে জেলায় পাসের হার ৯৩ দশমিক ৮৫ শতাংশ। আর ইবতেদায়িতে ৯৬ দশমিক ৩৬ শতাংশ। পিইসিতে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ৪৩ হাজার ৯৪৩ জন। পাস করেছে ৪১ হাজার ২৮৯ জন। আর ইবদায়িতে তিন হাজার ৫৯৫ পরীক্ষার্থীর মধ্যে পাস করেছে তিন হাজার ৪৬৪ জন। জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা নফিসা বেগম জানান, পিইসিতে এবার জিপিএ-৫ পেয়েছে পাঁচ হাজার ২৮১ জন। আর ইবতেদায়িতে জিপিএ-৫ পেয়েছে ১২৬ জন। খুদে এই শিক্ষার্থীরা পরীক্ষায় বড় সফলতা দেখিয়েছে বলে মনে করেন এই শিক্ষা কর্মকর্তা।

বশিরাবাদ মাদ্রাসার কৃতিত্ব

রাজশাহী জেলার পবা উপজেলার বশিরাবাদ দাওয়াতুল ইসলাম আলিম মাদ্রাসা থেকে জেডিসি-২০১৭ তে ২৬ জন ‘এ প্লাস’, ৩৪ জন এ গ্রেড, ০৭ জন এ মাইনাসসহ ৭০ জনে ৭০ জন (শতভাগ) পাশ করে এবছরে ও পবা উপজেলার শীর্ষ অবস্থান দখল করেছে। ইবতেদায়ী (৫ম) সমাপনী-২০১৭ তে ১৩ জন ‘এ প্লাস’, ২৬ জন এ গ্রেড, ১৫ জন এ মাইনাসসহ ৬৩ জনে ৬৩ জন (শতভাগ) পাশ করে বরাবরের মত এবারও পবা উপজেলার শীর্ষে। উল্লেখ্য এর আগে জেডিসিতে বিভাগে ৩য় ও ৫ম সমাপনীতে বিভাগে ৫ম স্থান লাভ করেছিল। ভাল ফলাফলের জন্য মাদ্রাসার অধ্যক্ষ ও সভাপতি সাহেব আল্লাহর শুকরিয়া আদায় করেন ও সকল শিক্ষক মন্ডলী, অভিভাবক মন্ডলী এবং ছাত্র/ছাত্রীদের ধন্যবাদ জানান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ