ঢাকা, সোমবার 1 January 2018, ১৮ পৌষ ১৪২৪, ১৩ রবিউস সানি ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

মাসব্যাপী ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলা আজ শুরু

স্টাফ রিপোর্টার: শতভাগ প্রস্তুত না হলেও আজ সোমবার থেকে শুরু হতে যাচ্ছে ২৩ তম ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা-২০১৮। রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে অবস্থিত বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রের পাশের মাঠে নতুন বছরের প্রথম দিন, অর্থাৎ ১ জানুয়ারি থেকে এ মেলা শুরু হবে। চলবে আগামী ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ সোমবার সকালে এ মেলার উদ্বোধন করবেন। দেশের বাণিজ্য প্রসারে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ও রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর (ইপিবি) যৌথ আয়োজনে মাসব্যাপী এ মেলায় প্রতিবছরই সমাগম ঘটে দেশী-বিদেশী ক্রেতা-বিক্রেতাদের।
সরজমিনে দেখা যায়, শেষ মুহূর্তের সাজ সজ্জায় ব্যস্ত মেলা সংশ্লিষ্টরা। মেলা প্রাঙ্গণের ৩১ দশমিক ৫৩ একর জমিতে ২৩তম এই মিলনমেলা সফলভাবে সম্পন্ন করতে সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে আয়োজক কর্তৃপক্ষ।
জানা গেছে, এবারের মেলাকে ভিন্ন আঙ্গিকে সাজাতে মেলায় ফিশ ও বার্ড একুয়ারিয়াম প্রদর্শন করা হবে। শিশুদের জন্য থাকবে পার্ক, গেমিং জোন ও খেলার উপকরণ। এছাড়া এবারের মেলার মূল ফটকে তুলে ধরা হবে বাংলাদেশের ইতিহাস ও ঐতিহ্য। নিজেদের অর্থে স্বপ্নের পদ্মা সেতু নির্মাণের গর্ব নিয়ে এবার মেলায় প্রবেশ করবেন দর্শনার্থীরা।
আয়োজক রফতানি উন্নয়ন ব্যুরো বলছে, দেশের রপ্তানী বাড়াতে ভালো ভূমিকা রাখে এই মেলা। এবার রপ্তানি আদেশ আগের থেকে ভালো হবে বলেও আশা তাদের। মেলায় আগত দর্শনার্থীদের ভ্রমণ নির্বিঘœ করতে নেওয়া হয়েছে সার্বিক প্রস্তুতিও।
ইপিবির তথ্যমতে, এবারের মেলায় থাকছে ১৪ ক্যাটাগরিতে দেশ-বিদেশের ৫২০টি স্টল ও প্যাভিলিয়ন। দর্শনার্থীদের আনন্দ দিতে থাকছে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানও।
এ প্রসঙ্গে ইপিবির ভাইস চেয়ারম্যান বিজয় ভট্টাচার্য্য বলেন, স্টল নির্মাণসহ মেলার প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি এরই মধ্যে শেষ হয়েছে। সর্বোচ্চ নিরাপত্তা নিশ্চিতে পুরো মেলা প্রাঙ্গণ সিসি ক্যামেরা নিয়ন্ত্রিত থাকবে। মেলা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্নের জন্য বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।
জানা গেছে, এবারের মেলায় বাংলাদেশ ছাড়াও ভারত, পাকিস্তান, চীন, মালয়েশিয়া, ইরান, থাইল্যান্ড, যুক্তরাষ্ট্র, তুরস্ক, সিঙ্গাপুর, অস্ট্রেলিয়া, যুক্তরাজ্য, দক্ষিণ কোরিয়া, জার্মানি, নেপাল, হংকং, জাপান, আরব আমিরাত, মরিশাস, ঘানা, মরক্কো ও ভুটান অংশগ্রহণ করে। অংশগ্রহণকারী দেশের প্রতিষ্ঠানগুলো নিজেদের উৎপাদিত পণ্য প্রদর্শন করবে।
এদিকে বাণিজ্য মেলা উপলক্ষে আয়োজিত এক সাংবাদিক সম্মেলনে বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, বাণিজ্য মেলা শুধু ব্যবসা-বাণিজ্য প্রসারেই কাজ করে না। এটা একটা বিনোদনের কেন্দ্রেও পরিণিত হয়েছে।
এ ছাড়া অতীতের যেকোনো সময়ের চেয়ে এবারের ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা (ডিআইটিএফ)-২০১৮ সুশৃঙ্খলভাবে হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।
মন্ত্রী বলেন, মেলা প্রাঙ্গণে এবার ১০০টি সিসি ক্যামেরা থাকবে। প্রয়োজনে আরো বাড়ানো হবে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সব সময় মনিটরিং করবে। দর্শনার্থীদের চলাচলের সুবিধার জন্য মেলার অভ্যন্তরের রাস্তাগুলোতে বেশি জায়গা রাখা হয়েছে।
 রোববার রাজধানীর শেরে বাংলা নগরে মেলা প্রঙ্গণে আয়োজিত সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি এ সব কথা বলেন। বাণিজ্য মন্ত্রণালয় এবং রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত হচ্ছে ২৩তম ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা-২০১৮।
মন্ত্রী বলেন, ২০১৮ সাল হলো নির্বাচনের বছর। আগামী জাতীয় নির্বাচন হবে ক্ষমতাসীন সরকারের অধীনে। আর নির্বাচন পরিচালনা করবে নির্বাচন কমিশন। ইসি যে নিরপেক্ষ নির্বাচন করতে পারে সেটা প্রমাণ করেছে কুমিল্লা ও রংপুর সিটি নির্বাচন করে।
পূর্বাচলে মেলা আয়োজন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, পূর্বাচলে স্থায়ীভাবে বাণিজ্য মেলা হবে ২০২০ সাল থেকে এবং এবারের বাণিজ্য মেলার প্রধান প্রবেশদ্বার করা হয়েছে পদ্মা সেতুর আদলে।
তিনি বলেন, এবার মেলায় ভিন্নতা আনার চেষ্টা করা হয়েছে। ভেতরে বেশ ফাঁকা রাখা হয়েছে। মেলার দুই প্রান্তে সুন্দরবন ইকো পার্কের আকৃতি দেওয়া হয়েছে। শিশু কর্নারের কাজও প্রায় শেষ। অর্কিডের বাগানের কাজ চলছে। আশা করছি কাল বিকেলের মধ্যেই সব কাজ শেষ হয়ে যাবে।
মেলায় এবার স্টল ও প্যাভিলিয়নের সংখ্যা ৫৮৯টি। বড় প্যাভিলিয়ন ১১২টি, মিনি প্যাভিলিয়ন ৭৭টি ও বিভিন্ন ক্যাটাগরির মোট স্টলের সংখ্যা ৪০০টি।
এ ছাড়া মেলায় থাকছে বঙ্গবন্ধু প্যাভিলিয়ন, ফ্ল্যাওয়ার গার্ডেন, ই-শপ, শিশু পার্ক, প্রাইমারি হেলথ সেন্টার, মা ও শিশু কেন্দ্র, রক্ত সংগ্রহ কেন্দ্রসহ ৩২ ধরনের অবকাঠামো। মেলায় বিদেশী অংশগ্রহণকারী হিসেবে ১৭টি দেশের ৪৩টি প্রতিষ্ঠান অংশ নেবে।
বাণিজ্য সচিব শুভাশীষ বসু সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বলেন, মেলার স্টল বরাদ্দে কোনো অনিয়ম হয়নি। আর খাবারের স্টলগুলোর ব্যপারে এবার আমরা সতর্ক। প্রতিটি খাবারের দাম নির্ধারণ করা থাকবে। এমনকি সালাদের দাম নিলেও সেটার মূল্য দৃশ্যমানভাবে লেখা থাকতে হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ