শুক্রবার ২১ মে ২০১০
Online Edition

প্রাধান্য বিস্তার করাই এবারের লক্ষ্য বর্তমান বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ইতালির

রোম থেকে এএফপি : আগামী মাসে দক্ষিণ আফ্রিকায় অনুষ্ঠিতব্য বিশ্বকাপ ফুটবলে নিজেদের প্রাধান্য বিস্তার করা ছাড়া আর কিছুই ভাবছে না বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ইতালি। গ্রুপ এফ এ নিউজিল্যান্ড, প্যারাগুয়ে এবং নতুন স্লোভাকিয়ার বিপক্ষে স্পষ্ট ফেভারিট হিসেবে প্রথম রাউন্ডে তারা মাঠে নামবে। চার বছর আগে জার্মানীতে চতুর্থবারের মত বিশ্বকাপের শিরোপা ঘরে তোলা ইতালি এবার প্রথম রাউন্ডে অপেক্ষাকৃত সহজ প্রতিপক্ষের মুখোমুখি হবে। গত চার বছরে তাদের পারফরমেন্স এবারও তাদের শুধুমাত্র শীর্ষস্থানীয় দলগুলোর মধ্যেই রাখেনি বরং বর্তমান চ্যাম্পিয়ন হিসেবে নিজেদের নামের প্রতি সুবিচারও তারা করেছে। এফ গ্রুপে অন্যান্য দলগুলোর মধ্যে স্লোভাকিয়া প্রথমবারের মত বিশ্বকাপের চূড়ান্ত পর্বে খেলার সুযোগ লাভ করেছে। আর নিউজিল্যান্ড ১৯৮২ সালের পরে এবার দ্বিতীয়বারের মত বিশ্বকাপে এসেছে। সে কারণেই ইতালির সামনে একমাত্র শক্ত প্রতিপক্ষ হলো প্যারাগুয়ে। আর ধারাবাহিক চতুর্থবারের মত বিশ্বকাপের মূল পর্বে খেলার যোগ্যতা অর্জনকারী প্যারাগুয়ে দক্ষিণ আমেরিকান বাছাইপর্বে যে কঠিন বাধা পেরিয়ে এসেছে তাতে তাদের সামর্থ্য নিয়ে কোন সন্দেহ নেই। এই নিয়ে অষ্টমবারের মত প্যারাগুয়ে বিশ্বকাপের টিকেট পেয়েছে। কিন্তু কখনই দ্বিতীয় রাউন্ডের বাধা পেরুতে পারেনি। যেহেতু গ্রুপে সন্দেহাতীত ভাবে ইতালি ফেভারিট তাই দ্বিতীয় রাউন্ডে যেতে অপর তিন দলের যেকোনটিরই সুযোগ রয়েছে। আর গ্রুপের রানার্স-আপ এর জন্য বেশ জমজমাট লড়াই হবে বলেই সকলে ধারণা করছেন। এই তিন দলের বিপক্ষে শতভাগ সাফল্যের রেকর্ড রয়েছে ইতালির। এর আগে ১৯৯৮ সালে ইতালি একবার মাত্র স্লোভাকিয়ার মুখোমুখি হয়েছিল। ক্যাটানিয়ার নিজেদের মাঠে ঐ ম্যাচে ৩-০ গোলে জয়ী হয়েছিল ইতালি। কিন্তু তখন থেকেই স্লোভাকিয়া নিজেদের গুছিয়ে উঠার মিশন শুরু করে। বর্তমান চ্যাম্পিয়ন দলের কোচ মারসেলো লিপ্পি গত সপ্তাহে যে প্রাথমিক স্কোয়াড ঘোষণা করেছেন তাতে বেশ কিছু বিস্ময় রয়েছে। ঐ দলে জার্মান বিশ্বকাপ জয়েরর ১০জন খেলোয়াড় রয়েছেন। এছাড়া একমাত্র নতুন মুখ হিসেবে ডাক পেয়েছে ভিলারিয়ালের স্ট্রাইকার গিউসেপ রোসি। আগামী ৯ জুন আজ্জুরিদের দক্ষিণ আফ্রিকায় পৌঁছানোর কথা রয়েছে এবং কেপ টাউনে ১৪ জুন প্যারাগুয়ের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে তারা বিশ্বকাপ মিশন শুরু করবে। প্যারাগুয়ের বিপক্ষে ইতালি এর আগে দুটি ম্যাচে জয়ী হয়েছে। এর মধ্যে একটি ১৯৫০ সালের ব্রাজিল বিশ্বকাপে এবং অন্যটি ১৯৯৮ সালে পারাতে একটি প্রদর্শনী ম্যাচে। তবে এই প্যারাগুয়ে দলটিও বিশ্বকাপকে সামনে রেখে নিজেদের প্রস্তুতিতে কোনপ্রকার ছাড় দেয়নি। বিশেষ করে দক্ষিণ আমেরিকার বাছাইপর্বের শক্ত বাধা পেরিয়ে আসাটা তাদের বড় শক্তি হয়েই কাজে দিবে। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে এর আগে প্রি কনফেডারেশন কাপে একবার মুখোমুখি হওয়া ইতালি ৪-৩ গোলে জয় পেয়েছিল। বিশ্বকাপের জন্য নিউজিল্যান্ডের কোচ রিকি হারবার্স্ট ঘোষিত ২৩ সদস্যের প্রাথমিক দলে একমাত্র নতুন মুখ হিসেবে ডাক পেয়েছেন মিডফিল্ডার এ্যারন ক্যাপহ্যাম। ১৯৮২ সালের পরে বিশ্বকাপের চূড়ান্ত পর্বে সুযোগ পাওয়া নিউজিল্যান্ডের স্কোয়াড গোছাতে বেশ বেগ পেতে হয়েছে বলে কোচ স্বীকার করেছেন। ৮২'র ঐ দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন হারবার্স্ট।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ