ঢাকা, মঙ্গলবার 2 January 2018, ১৯ পৌষ ১৪২৪, ১৪ রবিউস সানি ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

খুলনার স্কুল ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্নবিদ্ধ ফলাফল এবার আদালতে গড়াচ্ছে

খুলনা অফিস : খুলনায় সরকারি স্কুলে ভর্তি পরীক্ষার সংশোধিত ফলাফল নিয়ে থেমে নেই বাদ পড়া শিক্ষার্থীদের অভিভাবকেরা। এজন্য তারা জেলা প্রশাসকের সাথে আলোচনায় বসেও কোন সুফল না পাওয়ায় উচ্চ আদালতে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। এরই অংশ হিসেবে খুব শীঘ্রই আদালতে রিট পিটিশন দাখিলের সম্ভাবনা রয়েছে।
অভিভাবকদের সূত্রে জানা গেছে, খুলনা মহানগরীর সরকারি ৭টি স্কুলে জেলা প্রশাসনের অধীনে তৃতীয় ও ষষ্ঠ শ্রেণিতে ভর্তি পরীক্ষা ১৯ ও ২০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হয়। এই পরীক্ষার ফলাফল গত ২১ ডিসেম্বর প্রকাশিত ফলাফল অনলাইনে আপলোডের সময় কারিগরি ত্রুটির কারণে ওই দিনই ফলাফল স্থগিত করেন। স্থগিত করার পরের দিন যাচাই-বাছাইয়ের ফলে নতুন করে ১৪৪ জন পরীক্ষার্থী ফলাফলে নতুন করে উর্ত্তীণ হয়। এর ফলে প্রথমে প্রকাশিত ফলাফল থেকে সমপরিমাণ উত্তীর্ণ পরীক্ষার্থী বাদ পড়ে যায়। এর ফলে ক্ষুব্ধ হয়ে পড়েন বাদ পড়া শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি অভিভাবকরাও। সংশোধিত ফলাফল মেনে না নিতে তারা আন্দোলন, সাংবাদিক সম্মেলন ও জেলা প্রশাসকের মুখোমুখি হন। তাতেও কাজ হয়নি। এদিকে জেলা প্রশাসক গত রোববার পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের মাধ্যমে সংশোধিত ফলাফল মেনে নেয়ার জন্য অভিভাবকদের অনুরোধ জানান। কিন্তু তাতেও থামছে না অভিভাবকদের আন্দোলন। তারা বিষয়টি নিয়ে গড়িয়েছে উচ্চ আদালতে। তারা ইতোমধ্যে বিষয়টি নিয়ে রিটের অধিকাংশ কার্যক্রম সম্পন্ন হয়েছে। যা খুব শীঘ্রই আদালতে জমা হতে পারে বলেও জানিয়েছেন রিটের সাথে সংশ্লিষ্ট অভিভাবকরা। একইসাথে অভিভাবকেরা সংশ্লিষ্ট স্কুলগুলোর প্রতিটি শাখায় কিছু আসন বৃদ্ধি করে ভর্তি করানোর দাবিও জানান।
এ ব্যাপারে খুলনা জেলা প্রশাসক মো. আমিন-উল আহসান বলেন, স্কুলগুলোতে আসন বৃদ্ধির ক্ষেত্রে তাদের কোন হাত নেই। এছাড়া কোন অভিভাবক ক্ষুব্ধ হলে রিট করতে পারেন। তবে কারিগরি ত্রুটির কারণে ভুল নিয়ে সামনে যেতে চাই না। এছাড়া তারা তাদের আগের সিদ্ধান্তে অটল রয়েছেন বলেও জানান তিনি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ