ঢাকা, বৃহস্পতিবার 4 January 2018, ২১ পৌষ ১৪২৪, ১৬ রবিউস সানি ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

বরিশাল থেকে ঝালকাঠি হয়ে ১০ রুটে বাস চলাচল ফের বন্ধ

ঝালকাঠি সংবাদদাতা : বরিশাল নগরীর রূপাতলী ও ঝালকাঠি বাস মালিক সমিতির মধ্যে রুট হিস্যা নিয়ে দ্বন্দ্বে ফের ১০টি রুটে বাস চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। বুধবার সকাল থেকেই বরিশাল থেকে সরাসরি ঝালকাঠি, পিরোজপুর, বরগুনা, পাথরঘাটা, মঠবাড়িয়া, ভান্ডারিয়া, রাজাপুর, নলছিটি, মোল্লারহাট ও খুলনা রুটে বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। তবে ঝালকাঠি থেকে ওই সকল রুটে বাস চলাচল করছে। ঝালকাঠি বাস মালিক সমিতির সভাপতি সরদার শাহ আলম জানান, মঙ্গলবার বিকেলে বিভাগীয় কমিশনারের আহ্বানে ডাকা সমঝোতা বৈঠকে তারা উপস্থিত হলেও সেখানে অনুপস্থিত ছিলেন রূপাতলী বাস মালিক সমিতির নেতৃবৃন্দ। তারা না আসায় এ ধর্মঘটের ডাক দেয়া হয়। সংশ্লিষ্ট সূত্র থেকে জানা গেছে, ঝালকাঠি থেকে বরিশাল পর্যন্ত মাত্র দুই কিলোমিটার রাস্তা ব্যবহার করে যাত্রীবাহী বাসগুলো। যার কারণে বরিশাল থেকে ঝালকাঠির উপর দিয়ে ৪৬টি বাসের ট্রিপ চলে। অন্যদিকে বরিশাল থেকে পটুয়াখালীর কুয়াকাটা সড়ক পথে ঝালকাঠির উপর দিয়ে ৮ কিলোমিটার রাস্তা ব্যবহার করছে বরিশাল বাস মালিক সমিতি। অথচ এই রুটে ঝালকাঠি মালিক সমিতির কোনো বাস নেই। এই হিস্যার কারণে ঝালকাঠি মালিক সমিতি আন্দোলনের ডাক দেয়। বরিশাল রূপাতলী বাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক কাওসার হোসেন শিপন জানান, বরিশালের কোনো বাস ঝালকাঠি দিয়ে চলাচল করতে দিচ্ছে না ঝালকাঠি মালিক সমিতি। তাই ওই সব রুটে বাস চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে। ইতোমধ্যে বিষয়টি নিয়ে বরিশাল-১ আসনের এমপি আবুল হাসনাত আবদুল্লাহর হস্তক্ষেপ কামনা করেছি। তিনি বিষয়টি নিয়ে সরকারের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলেছেন। দুই বাস মালিক সমিতির দ্বন্দ্ব নিরসনে বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়ে সভার আয়োজন করা হচ্ছে। এতে করে সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে। উল্লেখ্য, গত মাসে ১৮ থেকে ২০ ডিসেম্বর পর্যন্ত একই দাবিতে ঝালকাঠি বাস মালিক সমিতি ধর্মঘটে যায়। এক পর্যায় প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠকের মাধ্যমে ধর্মঘট সাময়িকভাবে স্থগিত করা হয়। কিন্তু ওই বৈঠকে কথা হয়েছিল বিষয়টি সুষ্ঠু সমাধানের জন্য ২ জানুয়ারি বৈঠক হবে। ওই বৈঠকে রূপাতলী বাস মালিক সমিতি উপস্থিত না হওয়ায় সমস্যার আর সমাধান হয়নি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ