ঢাকা, শনিবার 6 January 2018, ২৩ পৌষ ১৪২৪, ১৮ রবিউস সানি ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

শরীয়তপুরের বিনোদপুরে স্মার্টকার্ড বিতরণের সময় লাইনে দাঁড়ানোকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগে সংঘর্ষে আহত ৩০

শরীয়তপুর সংবাদদাতা : স্মার্ট কার্ড বিতরণকে কেন্দ্র করে শরীয়তপুরের বিনোদপুর ইউনিয়নে জাতীয় পরিচয় পত্র (স্মার্ট কার্ড) বিতরণের সময় লাইনে দাড়ানো নিয়ে আওয়ামীলীগের মধ্যে সংঘর্ষে উভয় গ্রুপের ৩০ জন আহত হয়েছে। আহতদের শরীয়তপুর সদর হাসপাতাল ও বিভিন্ন ক্লীনিকে ভর্তি করা হয়েছে। শুক্রবার সকালে ও বৃহস্পতিবার রাতে বিনোদপুর ইউনিয়নের চরের কান্দি এবং মাহমুদ বাজারে এ ঘটনা ঘটে। এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।
পালং মডেল থানা ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, শরীয়তপুর সদর উপজেলার বিনোদপুর ইউনিয়নের গয়াতলা বাজারে গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে ২নং ওয়াডের স্মার্ট কার্ড বিতরণ করে। এ সময় কার্ড উত্তোলন করার জন্য লাইনে দাড়ায়। স্থানীয় আওয়ামীলীগের সমর্থক সাঈদ শেখ লাইন ভেঙ্গে আগে গিয়ে কার্ড চায়। অপর আওয়ামীলীগের সমর্থক মান্নান মাদবর এতে বাধা দেয়। এ নিয়ে সাঈদ শেখ ও মান্নান মাদবর, মেম্বার হারুনমাদবর গ্রুপের মধ্যে কথাকাটাকাটি হয়। এ ঘটনার জের বৃহস্পতিবার রাত ৯টার সময় আওয়ামীলীগের উভয় সমর্থকরা দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে আওয়ামীলীগের সমর্থক এক পক্ষ অপর পক্ষের উপর হামলা চালায়। এ সময় ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ইটপাটকেল নিক্ষেপের ঘটনা ঘটে। দুটি পক্ষই স্থানীয় চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগ নেতা হামিদ সাকিদারের বলে জানাগেছে। এ ঘটনার জের ধরে শুক্রবার সকালে পূনরায় উভয় গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ সময় আতা ছৈয়াল, মাহবুব শেখ,  তোফাজ্জেল ছৈয়াল, তাইজুল ইসলাম, সজিব মাদবর, আবু আলেম মাদবর, একাব্বর মাদবর, শাকিল ফকির, মোনাছ ফকির, চানমিয়া মাদরব, জয়নাল খান, হারুন মাদবর, হামিদুল রহমান, সেরজামাল মাদবর, সুজন মোল্যা, হান্নান মোল্যা, রেজাউল মাদবর, আজিজুল খান, ছমেদ আকন, নুল ইসলাম আকনও হালিম ছৈয়ালসহ উভয় গ্রুপের অন্তত ৩০ জন আহত হয়। আহতদের শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে চিকিৎসাধীন উভয় পক্ষের ৮জনকে আটক করেছে পালং মডেল থানা পুলিশ।  পালং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুজ্জামান বলেন, বিনোদপুর ইউনিয়নে স্মার্ট কার্ড বিতরনকে কেন্দ্র করে উভয় পক্ষের সংঘর্ষে ২০/ ২৫ জন আহত হয়। এ ঘটনায় উভয় পক্ষের ৮ জনকে আটক করা হয়েছে। আটককৃতরা পুলিশ পাহারায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে। এ বিষয়ে মামলা মামলার প্রস্তুতি চলছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ